JavaScript must be enabled in order for you to see "WP Copy Data Protect" effect. However, it seems JavaScript is either disabled or not supported by your browser. To see full result of "WP Copy Data Protector", enable JavaScript by changing your browser options, then try again.
সংবাদ শিরোনাম:

প্রস্তুত আওয়ামী লীগ নিশ্চুপ বিএনপি

আবু জাহের, শেরপুর (বগুড়া) প্রতিনিধিঃ জাতীয় সংসদ নির্বাচন শেষ না হতেই শেরপুর উপজেলায় নির্বাচনের তোড়জোড় শুরু হয়েছে। আগামী ফেব্রুয়ারি মাসে উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের তফসিল এবং মার্চে
নির্বাচন এমন ঘোষণা আসার পরপরই দলীয় মনোনয়ন পেতে স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীরা দৌড়ঝাঁপ শুরু করেছেন। তবে হামলা মামলায় বিপর্যস্ত বিএনপিএখন
পুরোটাই নিশ্চুপ।
একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের রেশ কাটতে না কাটতেই বগুড়ার শেরপুরে উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের হাওয়া বইতে শুরু করেছে। বিগত ২০১৪সালের ১৯শে ফেব্রুয়ারি এই উপজেলায়
নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। সেই হিসেবে পরিষদের মেয়াদও প্রায় ফুরিয়ে আসছে। প্রথম বারের মতো দলীয় প্রতীকে নির্বাচন। সেক্ষেত্রে দল থেকে প্রার্থীদের মনোনয়ন নিতে
হবে। নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার সম্ভাব্য তারিখ ঘোষণার পর শেরপুর উপজেলায় চেয়ারম্যান ও ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী কারা হচ্ছেন তা নিয়ে আলোচনা শুরু হয়েছে।
তবে চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগের একাধিক প্রার্থী হিসেবে এখন অনেকেই মাঠে নেমে পড়েছেন ।

তবে জাতীয় নির্বাচনে শোচনীয় পরাজয়ের পর উপজেলা নির্বাচন নিয়ে বিএনপির নেতাকমীরা চুপ থাকলেও অন্যদলের প্রার্থীরা বসে নেই। বিশেষ করে আওয়ামীলীগের অনেক নেতাই প্রার্থী হওয়ার বিষয়ে জানান দিচ্ছেন। জোর প্রস্তুতি নিতেও দেখা যাচ্ছে তাঁদের। এরই ধারাবাহিকতায় দলীয় নেতাকর্মীসহ এলাকার জনগণের সঙ্গে নিয়মিত যোগাযোগ রক্ষা করে চলছেন। এসব নেতাদের কর্মী-সমর্থকরাও বসে নেই। পছন্দের প্রার্থীর নামে শুভেচ্ছা ব্যানার ও পত্রিকায় বিজ্ঞাপন দিয়ে কৌশলে প্রচারণা চালাচ্ছেন তারা। এমনকি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমেও (ফেসবুক) একই কায়দায় প্রচার- প্রচারণা চালানো হচ্ছে।

উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা হওয়ার আগেই চেয়ারম্যান ও ভাইস চেয়ারম্যান পদে একাধিক মনোনয়ন প্রত্যাশী দলীয় মনোনয়ন পেতে জোর তদবির শুরু করেছেন। পাশাপাশি মাঠেও নেমেছেন তাঁরা। নিজ নিজ দলের নেতাকর্মীদের সঙ্গে নিয়ে গণসংযোগসহ দোয়া প্রার্থনা করছেন সম্ভাব্য প্রার্থীরা। ফলে এই উপজেলা পরিষদ নির্বাচনকে ঘিরে নির্বাচনী আমেজ তৈরী হয়েছে।

তাই এসব প্রার্থীদের নিয়ে চা- স্টলসহ সর্বত্রই চলছে নানা জল্পনা কল্পনা। উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে আওয়ামীলীগের সম্ভাব্য প্রার্থীদের মধ্যে যাদের নাম শোনা যাচ্ছে তাঁরা হলেন- বগুড়া জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ¦ মজিবর রহমান মজনু, স্থানীয় এমপি আলহাজ¦ হাবিবর রহমানের ভাই আ.লীগ এড. তোজাম্মেল হক,  সাবেক সাধারণ সম্পাদক শাহজামাল সিরাজী, পৌর আওয়ামীলীগের সভাপতি মকবুল হোসেন। এছাড়া ভাইস চেয়ারম্যান পদে এড. আজমী আরা পারভীন শান্তনা, সাবেক পৌরসভার কাউন্সিলর শিল্পী বেগম, এড. রেজাউল করিম মজনু, বদরুল ইসলাম পোদ্দার ববি ও সুলতান মাহমুদ। অন্যদিকে উপজেলা পরিষদ নির্বাচন নিয়ে বিএনপি নেতৃত্বাধীন

জোট সিদ্ধান্তহীনতায় থাকলেও চেয়ারম্যান পদে বগুড়া জেলা বিএনপির উপদেষ্টা ও শেরপুর উপজেলা বিএনপি আহবায়ক জানে আলম খোকা, বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য কেএম মাহবুবার রহমান হারেজ, জামায়াত সমর্থিত বর্তমান উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান দবিবুর রহমানের নাম শোনা যাচ্ছে। আর ভাইস চেয়ারম্যান পদে উপজেলা বিএনপির যুগ্ম আহবায়ক শ্রমিক নেতা আরিফুর রহমান মিলন, রফিকুল ইসলাম মিন্টু, জামায়াতের এড.
এমএ হালীম, মাওলানা আব্দুস সাত্তার ও লুৎফুন ইসলাম। এছাড়া উপজেলা চেয়ারম্যান জাতীয় পার্টির (এরশাদ) নুরুজ্জামান বারী মিথুন, ওমর ফারুক, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের মীর মাহমুদুর রহমান চুন্নু, ইমরান কামাল, কমিউনিস্ট পার্টির হরিশংকর সাহা, বাসদের রঞ্জন কুমার দে, জাসদের (ইনু) রাসেল মাহমুদ প্রার্থী হতে পারেন বলে শোনা যাচ্ছে।

এদিকে উপজেলা নির্বাচনকে ঘিরে উপজেলা নির্বাচন অফিসের কর্মকর্তা-কর্মচারীরাও ব্যস্ত সময় পার করছেন। জানতে চাইলে উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মোছা. আছিয়া খাতুন জানান, সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে আগামি মার্চেই এই উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের তফসিল হবে। তাই নির্বাচন কমিশনের নির্দেশনা অনুযায়ী কাজ করছেন। ভোটগ্রহণের যাবতীয় কাজগুলো ধীরে ধীরে সম্পন্ন করা হচ্ছে। তিনি আরও জানান, এই উপজেলায় বর্তমান ভোটার সংখ্যা ২লাখ ৫৪হাজার ৩৬৯জন। এরমধ্যে ১লাখ ২৩হাজার ৯১৬জন পুরুষ ও ১লাখ ৩০হাজার ৪৫৩জন মহিলা ভোটার রয়েছেন বলে এই কর্মকর্তা। উপজেলা যুবলীগের সভাপতি তরিকুল ইসলাম তারেক বলেন, ২০১৪ সালের নির্বাচনে মজিবর রহমান মজনু পরাজিত হওয়ার পরেও নির্বাচনকে সামনে রেখে ভোটারসহ সাধারণ জনগণের

সঙ্গে বেড়েছে তার যোগাযোগ। প্রতিদিনই তিনি উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় গিয়ে নেতাকর্মী ও ভোটারদের সঙ্গে মতবিনিময় করে চলেছেন। এলাকার উন্নয়নে সার্বিক যোগাযোগ রক্ষা করে শেরপুর উপজেলার উন্নয়নে কাজ করেছেন। অপরদিকে বিএনপি এখন পর্যন্ত উপজেলা পরিষদ নির্বাচন নিয়ে কোনো সাড়া নেই। বর্তমান উপজেলা চেয়ারম্যান জামায়াত নেতা মাওলানা দবিবর রহমান কারাগারে থাকায়  তাদের নেতাকর্মী ও সমর্থকদের দেখা নেই মাঠে। উপজেলা বিএনপির সভাপতি আলহাজ্ব জানে আলম খোকা বলেন, কেন্দ্রীয়ভাবে উপজেলা নির্বাচনে অংশ নেয়া, না নেয়া নিয়ে এখনো কোনো সিদ্ধান্ত হয়নি। ফলে এ নির্বাচনে বিএনপি অংশগ্রহণ করবে কিনা সেটা সিদ্ধান্ত না হওয়া পর্যন্ত কোনো মন্তব্য করা ঠিক হবে না।

সংবাদ পড়ুন, লাইক দিন এবং শেয়ার করুন

Comments

comments

About আওয়াজ অনলাইন

x

Check Also

সিদ্ধিরগঞ্জের রাসেল ও সজিবকে ডেমরা থানা পুলিশের হাতে ইয়াবাসহ গ্রেফতার

জাকির হোসেন, সিদ্ধিরগঞ্জ প্রতিনিধি: সিদ্ধিরগঞ্জের সানারপাড় নিমাইকারী এলাকার রাসেল@ ইয়াবা রাসেল ও সজিবকে ডেমরা থানা পুলিশ গ্রেফতার ...

error: Content is protected !!