হোম » প্রধান সংবাদ » উল্লাপাড়ায় করোনা পজিটিভ স্বামী-স্ত্রী কে পরীক্ষা না করে করোনা নেগেটিভের ছাড়পত্র দিলো টিএইচও

উল্লাপাড়ায় করোনা পজিটিভ স্বামী-স্ত্রী কে পরীক্ষা না করে করোনা নেগেটিভের ছাড়পত্র দিলো টিএইচও

উল্লাপাড়া প্রতিনিধিঃ সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়ায় করোনার উপসর্গ থাকায় স্বামীর স্ত্রী দুজনের নমুনা সংগ্রহ পর পরীক্ষা করে করোনা পজিটিভ হয়। গত ২৬ শে জুন উল্লাপাড়ায় স্বামী স্ত্রী সহ মোট ৭ জন করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে।এর প্রেক্ষিতে উল্লাপাড়া পৌর সভার শ্যামলীপাড়া পাড়া করোনা আক্রান্ত রুহুল আমিন ও সুলতানা দম্পতির বাড়ি লকডাউন করে পৌর মেয়র এস এম নজরুল ইসলাম। এরপর তার বাড়িতে খাবার সরবরাহ ও নিয়মিত খোঁজখবর রেখেছেন পৌর মেয়র। করোনা আক্রান্ত দম্পতির সংস্পর্শে কেউ যেন না আসে এজন্য তার বাড়িতে তালাবদ্ধ করে রেখে দেয় পৌর কাউন্সিল আবুল কালাম আজাদ।

এর ঠিক ৬ দিন পর (২ জুলাই) বৃহস্পতিবার শ্যামলীপাড়ার মহল্লা গুলোতে মাইকিং করা হয় রুহুল আমিন ও সুলতানা দম্পতি করোনা মুক্ত হয়েছে। এ ঘটনায় সচেতন মহলের মাঝে উদ্বেগ উৎকণ্ঠা ও আতঙ্ক সৃষ্টি হয়েছে। অভিযোগ উঠেছে রুহুল আমিন ও সুলতানা দম্পতির দ্বিতীয় বার নমুনা সংগ্রহ না করেই করোনা নেগেটিভের প্রত্যায়পত্র দেওয়া হয়েছে।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের নতুন পরিপত্র অনুযায়ী জানা যায় করোনা আক্রান্ত ব্যক্তির যদি কোন প্রকার করোনা উপসর্গ না থাকে তাহলে তাকে ১৪ দিন হোম কোয়ারান্টাইনে থাকতে হবে। ১৪ দিনে যদি তার শরীরে নতুন করে করোনা ভাইরাসের উপসর্গ না দেখায় তাহলে সে করোনা মুক্ত হবে এবং দ্বিতীয় বার নমুনা পরীক্ষার প্রয়োজন নেই।

উল্লাপাড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা আনোয়ার হোসেন স্বাক্ষরিত প্রত্যায়ন পত্রে (১ জুলাই) রুহুল আমিন ও সুলতানা দম্পতির করোনা নেগেটিভ দেখানো হয়েছে। অথচ একই তারিখে আরো ৫ জন করোনা পজিটিভ হয়েছে তারা সবাই হোম কোয়ারান্টাইনে রয়েছে৷ এতে জনমনে প্রশ্ন উঠছে কোন অজানা কারণে দুজনকেই করোনা নেগেটিভের সনদপত্র দেওয়া হয়েছে।

উল্লাপাড়া পৌর কাউন্সিল আবুল কালাম আজাদ জানান করোনা ভাইরাস আক্রান্ত বাড়িতে আমি তালাবদ্ধ করে রেখেছিলাম। পৌর সভার পক্ষ থেকে খাবার সরবরাহ করা হয়েছে। এবং তার সার্বিক খোঁজখবর নেওয়া হয়েছে। এসময় তিনি অভিযোগ করেন নমুনা সংগ্রহ না করে কিভাবে করোনা নেগেটিভের সনদপত্র দিয়েছে ডাক্তার এই প্রশ্ন সকলের।

উল্লাপাড়া ৩০ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. সামিউল ইসলাম রনি জানান নমুনা সংগ্রহ না করে করোনা করোনা নেগেটিভ অথবা পজিটিভ বলা যাবে না৷এ বিষয়ে উল্লাপাড়া উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা মোঃ আনোয়ার হোসেন জানান অনেকগুলো ছাড়পত্র দেওয়ার সময় এটা ভুল করে স্বাক্ষর করা হয়েছে।

শেয়ার করুন আপনার পছন্দের সোশ্যাল মিডিয়ায়
error: Content is protected !!