উল্লাপাড়ায় প্রতিপক্ষের হামলায় বাড়ি ও দোকান ভাংচুর লুটপাটের অভিযোগ, আহত ৭

উল্লাপাড়া প্রতিনিধিঃ বৃহস্পতিবার (২০ নভেম্বর) রাতে উল্লাপাড়া উপজেলার সদর ইউনিয়নের বজ্রাপুর গ্রামে একদল যুবক হামলা চালিয়ে ব্যবসায়ী আব্দুর রহমান ও তার আত্মীয় স্বজনের ছয়টি বাড়ি ও দোকান ভাংচুর করেছে।

এসময় হামলাকারীরা আব্দুর রহমান ও তার বাড়ির লোকজন কে বেধর মারপিট করে। গুরুতর আহত অবস্থায় আব্দুর রহমান কে রাতেই সিরাজগঞ্জের বঙ্গমাতা ফজিলাতুন্নেছা মুজিব জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। একই সঙ্গে আহত হন আব্দুর রহমানের বৃদ্ধ মা হালিমা খাতুন,স্ত্রী বুলবুলি খাতুন সহ আরো ৪ জন। হামলাকারীরা ঘটনার সময় আব্দুর রহমানের বাড়ির দুটি গরু,ছাগল, ৫ ভড়ি সোনার গহনা,৩ লাখ টাকা লুট করে নেয় বলে অভিযোগ করা হয়েছে।

এ বিষয়ে উল্লাপাড়া মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা দীপক কুমার দাশ খবর পেয়ে রাতেই পুলিশ নিয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন৷ পুলিশ যাওয়ার খবর পেয়ে হামলাকারীরা পালিয়ে যায়।

আব্দুর রহমানের স্ত্রী বুলবুল খাতুন,ইউনুস আলীর স্ত্রী হাসিনা খাতুন এবং আলম হোসেনের স্ত্রী আফরোজা খাতুন অভিযোগ করেন রাজনৈতিক দ্বন্ধের জের ধরে পাশ্ববর্তী মন্ডলজানি গ্রামের ইউপি সদস্য দেলয়ার হোসেন মন্ডল তার লোকজন নিয়ে বৃহস্পতিবার রাত ৯ টার দিকে আকর্ষিক ভাবে এই হামলা চালায়৷ এসময় গরু, ছাগল, সোনার গহনা, নগদ টাকা, এবং দোকানের মালামাল লুট করে নেয় হামলাকারীরা।

অভিযোগকারীরা আরো জানান দুসপ্তাহ আগে উল্লাপাড়া সদর ইউনিয়ন আঃলীগের কার্যকারী কমিটির নির্বাচনের সময় উক্ত দেলয়ার হোসেন মন্ডল সাধারণ সম্পাদক হিসেবে প্রতিদ্ব›িদ্বতা করে হেরে যান, এসময় উল্লেখিত আব্দুর রহমান তাকে সমর্থন না করায় তখন থেকেই তার সঙ্গে গোলযোগের সৃষ্টি হয়। আর সেই গোলযোগের জের ধরে দেলয়ার বাহিনী এই হামলা ও লুটপাটের ঘটনা ঘটায় তারা উল্লাপাড়া থানায় এ ব্যপারে মামলা করার প্রস্তুতি নিচ্ছেন বলে জানান।

উল্লাপাড়া মডেল থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা দীপক কুমার দাশ জানান খবর পেয়ে রাতেই তিনি ঘটনাস্থলে যান তবে হামলাকারীরা তার পৌঁছার আগেই পালিয়ে যায়। বর্তমানে বড় ধরনের গোলযোগ এড়াতে বজ্রাপুর গ্রামে পুলিশ টহলের ব্যবস্থা করা হয়েছে। ইতিমধ্যে বিষয়টি তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ।