হোম » প্রধান সংবাদ » শ্রীপুরে ধর্ষণের বিচার চাইতে গিয়ে ফের ইউপি সদস্য কর্তৃক ধর্ষণের শিকার নারী পোশাক শ্রমিক

শ্রীপুরে ধর্ষণের বিচার চাইতে গিয়ে ফের ইউপি সদস্য কর্তৃক ধর্ষণের শিকার নারী পোশাক শ্রমিক

আব্দুর রউফ রুবেলঃ  গাজীপুরে শ্রীপুরে পিক-আপ চালক কর্তৃক ধর্ষণের বিচার চাইতে গিয়ে ফের কাওরাইদ ইউনিয়ন পরিষদের ১ নং ওয়ার্ড  সদস্য কলিম উদ্দিন কর্তৃক ধর্ষণের শিকার হয়েছেন এক নারী পোশাক শ্রমিক(২০)।শনিবার(২৫ জুলাই) ওই নারী পোশাক শ্রমিক বাদী হয়ে কাওরাইদ ইউনিয়ন পরিষদের ১নং ওয়ার্ড সদস্য কলিম উদ্দিন(৪০) ও তার পিক-আপ চালক  পারভেজের (২৮) বিরুদ্ধে শ্রীপুর মডেল থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন।মামলা দায়েরের পর থেকে মেম্বার কলিমউদ্দিন  পলাতক রয়েছে এবং অপর আসামি পারভেজকে নয়াপাড়া থেকে  গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

ধর্ষক  কলিম উদ্দিন শ্রীপুর উপজেলার নয়াপাড়া গ্রামের প্রয়াত আঃ হেকিমের ছেলে এবং তার পিক-আপ চালক পারভেজ  একই গ্রামের আঃ খালেকের ছেলে। মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, ভিকটিম স্থানীয় একটি পোশাক কারখানায় চাকুরি করেন।ভিকটিম তার  কর্মস্থলে যাওয়া আসার পথে পারভেজের সাথে পরিচয় এবং পরিচয় থেকে দুজনের মধ্যে নয় মাস যাবত প্রেমের সম্পর্ক । গত ১৮জুলাই (শনিবার) সন্ধ্যায় পারভেজ তার বসত বাড়িতে নিয়ে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে একাধিকবার ধর্ষণ করে এবং পরে ভিকটিমকে বাড়িতে রেখে পারভেজ পালিয়ে যায়। পরদিন তাঁর কোন খোঁজখবর না পেয়ে ভিকটিম  পারভেজের অপেক্ষায় বাড়িতে অবস্থান করতে থাকেন।

১৯জুলাই রাত ৮টার দিকে পিক-আপ মালিক ও স্থানীয় ইউপি সদস্য কলিম উদ্দিন তার চালক পারভেজের বাড়ি গেলে তাকে বিস্তারিত ঘটনা খুলে বলেন ভিকটিম। সবকিছু শুনে পারভেজের বিচার ও তার সঙ্গে বিয়ে করিয়ে দিবে বলে সেখান থেকে ভিকটিমকে কলিম উদ্দিন মেম্বার তার মোটরসাইকেলে তুলে প্রায় দুই কিলোমিটার দক্ষিণে গজারী বনের ভেতরে পরিত্যক্ত বাড়ির রান্না ঘরে জোর পূর্বক  ইচ্ছার বিরুদ্ধে একাধিকবার ধর্ষণ করেন।

ভিকটিম জানান, মেম্বার কলিম উদ্দিন ধর্ষণ শেষে তাকে ২০ হাজার টাকা দেয়ার কথা বলে। এতে রাজি না হওয়ায় তিনি তাকে মারধর করেন। পরে ঘটনাটি কাউকে বললে তাকে এবং তার পরিবারের সদস্যদের হত্যার হুমকি দিয়ে চলে যান কলিম উদ্দিন। শ্রীপুর মডেল থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) অশোক কুমার জানান, ধর্ষণের অভিযোগে পারভেজকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। পলাতক রয়েছে ইউপি সদস্য।ধর্ষিতাকে গাজীপুর শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ওসিসিতে পরীক্ষার জন্য প্রেরণ করা হয়েছে। অপর অভিযুক্ত ইউপি সদস্য কলিম উদ্দিনকে গ্রেপ্তারের অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

শেয়ার করুন আপনার পছন্দের সোশ্যাল মিডিয়ায়
error: Content is protected !!