হোম » প্রধান সংবাদ » উল্লাপাড়ায় করোনা সন্দেহে পরিত্যক্ত জায়গায় বাবা কে ফেলে আসলেন ছেলে

উল্লাপাড়ায় করোনা সন্দেহে পরিত্যক্ত জায়গায় বাবা কে ফেলে আসলেন ছেলে

রায়হান আলীঃ বাবা, তুমি এখানে এক রাত থাকো। কাল এসে তোমাকে নিয়ে যাবথ—এ কথা বলে ৬০ বছর বয়সী পিতা কে পরিত্যক্ত জায়গায় ফেলে যান তাঁর সন্তান। শ্বাসকষ্ট থাকায় করোনাভাইরাসে আক্রান্ত সন্দেহে তার ছেলে এমনটা করেন। সোমবার (১৩ জুলাই) সন্ধ্যায় উল্লাপাড়া পৌরবাস টার্মিনালে একটি পরিত্যক্ত জায়গায় ছোবাহান আলী কে রেখে চলে যান তার একমাত্র ছেলে নজরুল ইসলাম। ছোবাহান গয়হাট্টা মানিকদহ গ্রামের মৃত এন্তাজ আলীর ছেলে।

এ ঘটনা পুলিশ জানতে পেরে দিবাগত রাত সাড়ে ১২ টার দিকে উল্লাপাড়া মডেল থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা দীপক কুমার দাশ ও উপ-পরিদর্শক নুরে আলম সিদ্দিকী সেই বৃদ্ধা কে উদ্ধার করে পুলিশ পিক-আপের উল্লাপাড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন এবং সেই বৃদ্ধা কে খাবারদাবার ও সুচিকিৎসা নিশ্চিত করেন।

উল্লাপাড়া মডেল থানার উপ-পরিদর্শক নুরে আলম সিদ্দিকী এ খবরের সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, শ্বাসকষ্ট থাকায় ওই বৃদ্ধর একমাত্র ছেলে তাঁকে পৌরবাস টার্মিনালে রেখে গ্রামে চলে যান। কীভাবে তার সন্তান পিতার সঙ্গে এমন অমানবিক আচরণ করলেন? পুলিশ উদ্ধার না করলে রাতের বেলা হয়তো ওই অসুস্থ বৃদ্ধ কে শিয়াল–কুকুরে খেয়ে ফেলত।

আমরা সংবাদ পেয়ে সেই বৃদ্ধ কে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যাই এবং খাবারের ব্যবস্থা করি। উল্লাপাড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স সূত্রে জানা যায় ছোবাহান আলী কে আইসলেশন রাখা হয়েছে। মঙ্গলবার (১৪ জুলাই) তার নমুনা সংগ্রহ করা হবে।

শেয়ার করুন আপনার পছন্দের সোশ্যাল মিডিয়ায়
error: Content is protected !!