হোম » প্রধান সংবাদ » রায়গঞ্জে ঘুড়ি উড়িয়ে ব্যস্ত সময় পার করছেন ছোট বড় সবাই

রায়গঞ্জে ঘুড়ি উড়িয়ে ব্যস্ত সময় পার করছেন ছোট বড় সবাই

মোঃ মোকাদ্দেস হোসাইন সোহান, রায়গঞ্জ, সিরাজগঞ্জঃ- করোনা ভাইরাসের কারনে স্কুল কলেজসহ সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রয়েছে। সেই সাথে বন্ধ সকল কর্মক্ষেত্র। আর এই লম্বা ছুটিতে বাঙ্গালীর ঐতিহ্য রঙ্গিন ঘুড়িতে মেতেছেন সিরাজগঞ্জের রায়গঞ্জ উপজেলার তরুন প্রজন্মসহ নানান পেশাজীবি মানুষ। শিশু-কিশোর থেকে শুরু করে বিভিন্ন রয়সের অনেকেই একসাথে ফসলি জমির আইল, রাস্তার ধারে, ব্রিজের উপর এবং ফাকা মাঠগুলোতে ঘুড়ি উড়িয়ে সময় পার করছেন। অনেকেই আবার ঘুড়ির সুতোয় কাটাকাটি খেলে কিংবা আকাশে ঘুড়ি উড়িয়ে অবসাদ দূর করার এক সুস্থ্য বিনোদন। উপজেলার বিভিন্ন গ্রাম ঘুরে দেখা যায় বাশ-বেত এবং রঙ্গিন কাগজ দিয়ে ঘুড়ি তৈরী করে তা বিভিন্ন ভক্তদের কাছে বেশ ভালো দামে বিক্রি করছে এলাকার কিছু বেকার যুবক।

 

উপজেলার পাঙ্গাসী গ্রামের মোঃ আব্দুল খালেক বলেন, করোনা ভাইরাসের কারনে কোন কাজ না থাকায় আর্থিক সংকটের মধ্যে দিয়ে দিন যাচ্ছিল। হঠাৎ ঘুড়ির ব্যপক জনপ্রিয়তা দেখে ঘুড়ি বানানো এবং বিক্রির কাজে মন দিলাম। তবে ঘুড়ির বিক্রি ব্যপক সারা পাওয়ায় এটা আমার জন্য লাভ জনক ব্যবসা হয়ে উঠেছে। সাধারনত ঘুড়ি, গুড্ডি, কয়রা, বিমানসহ বিভিন্ন প্রকার ঘুড়ি এক একটা পঞ্চাশ, সত্তর, দুইশত টাকা থেকে তিনশত টাকা পর্যন্ত বিক্রি করা যায়। ভালো ভাবে কাজ করলে দিনে অন্তত ২/৩টা পর্যন্ত ঘুড়ি বানানো সম্ভব হয়। এদিকে ভূইয়াগাঁতী, চান্দাইকোনা,

 

ধানগড়া এবং পাঙ্গাসী ইউনিয়নের বেশ কয়েকজনের সাথে কথা বললে তারা জানান, সামাজিক দূরত্ব মেনে কিছুটা সময় কাটানোর জন্য রাতের বেলা ঘুড়ি উড়াতে ব্যস্ত থাকেন তারা। এটা এখন পুরো রায়গঞ্জ উপজেলার মানুষের
বিনোদন মাধ্যম। রাত হলেই সবাই তাকিয়ে থাকে আকাশের দিকে। যা মানুষকে একটা সুন্দর বিনোদন দিতে সাহায্যে করে। সুতরাং ঘুড়ি উড়িয়ে ব্যস্ত সময় পার করছেন রায়গঞ্জ উপজেলার ছোট-বড় সকল মানুষ।

শেয়ার করুন আপনার পছন্দের সোশ্যাল মিডিয়ায়
error: Content is protected !!