হোম » সারাদেশ » ধুনটে ইছামতি নদী থেকে সরকারি মাটি বিক্রয় মামলার আসামি গ্রেপ্তার 

ধুনটে ইছামতি নদী থেকে সরকারি মাটি বিক্রয় মামলার আসামি গ্রেপ্তার 

এম,এ রাশেদ,বগুড়া জেলা প্রতিনিধিঃ  বগুড়ার ধুনটে ইছামতি নদীর সরকারী মাটি বিক্রি করার মামলার আসামি রায়হান মন্ডল ওরফে মুনু (৩৮) নামে একজন মাটি ও বালু ব্যবসায়ীকে গ্রেপ্তার করেছে থানা পুলিশ।
ইউনিয়ন উপ- সহকারী‌ (ভূমি) কর্মকর্তা আয়শা খাতুনের দায়ের করা মামলার ভিত্তিতে তাকে গ্রেফতার করা হয়।
মামলার ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, উপজেলার চিকাশী ইউনিয়নের মোহনপুর গ্রামের ইছামতি নদী থেকে পানি উন্নয়ন বোর্ড কর্তৃক উত্তেলিত নদী পাড়ের মাটি দীর্ঘদিন ধরে বিক্রি করে আসছিলো ওই ব্যবসায়ী।
বিষয়টি আমলে নিয়ে ইউনিয়ন উপ- সহকারী (ভূমি) কর্মকর্তা আয়শা খাতুন ধুনট থানায় একটি মামলা দায়ের করে।
গত ৭ ফেব্রুয়ারি বৃহস্পতিবার রাতি অনুমান ১২টার দিকে ট্রাক্টরযোগে মাটি বিক্রি হচ্ছে এমন সংবাদের ভিত্তিতে উপজেলা সহকারী কমিশার (ভূমি) ও এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট ঘটনাস্থলে সঙ্গীয় পুলিশ ফোর্স ও আনসার সদস্যদের সহযোগিতায় মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করে। মোবাইল কোর্টের উপস্থিতি টের পেয়ে দুঃস্কৃতিকারীরা দ্রুত ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে যায়। ঘটনাস্থলে একটি ট্রাক ও একটি এক্সিবেটর মেশিন পাওয়া গেলেও ড্রাইভার পালিয়ে যাওয়ায় ট্রাক্টরট ও এক্সিবেটর বেকু মেশিন থানায় আনা সম্ভব হয়নি। তবে আলামত হিসেবে ৩টি ব্যাটারী জব্দ করে ভ্রাম্যমান আদালত।
ইউনিয়ন ভূমি উপ- সহকারী কর্মকর্তা আয়শা খাতুন জানান, সরকারী খাতের মাটি পাচার মূলত বালুমহাল ও মাটি ব্যবস্থাপনা আইন ২০১০ এর ৪ ও ৫ ধারার লংঘন এবং একই আইনের ১৫ ধারায় শাস্তিযোগ্য অপরাধ। মোবাইল কোর্ট পরিচালনার সময় ঘটনাস্থলে আসামীদের পাওয়া যায়নি। তবে অপরাধ সংঘটনের আলামত বিদ্যমান রয়েছে।
ধুনট থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) সৈকত হাসান জানান, ভূমি উপ- সহকারী কর্মকর্তা আয়শা খাতুনের দায়ের করা এজাহারের ভিত্তিতে উপজেলার সুলতানহাটা গ্রামের বাঘা মন্ডলের ছেলে রায়হান মন্ডল ওরফে মুনু কে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। অন্যান্য আসামীগন কে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।
error: Content is protected !!