হোম » প্রধান সংবাদ » সান্তাহারে ববি বেগমের সংসারে নেশার আগুন!

সান্তাহারে ববি বেগমের সংসারে নেশার আগুন!

গোলাম রব্বানী দুলাল,আদমদিঘী উপজেলা প্রতিনিধি : সবকিছুই ঠিকঠাক চলছিল সোহাগ হোসেন ও তার স্ত্রী ববি বেগমের। সোহাগ বাস চালকের হেলপারের কাজ করছিল আর ববি বেগম ছিলেন গৃহিনী। কিন্তু সুখ তাদের স্থায়ী হলো না। সোহাগের ইয়াবা ও হেরোইনের মতো মরণ নেশার আসক্ত কারণে চলে গেলো হেলপারের কাজ। নেশার টাকা জোগাড় করতে গিয়ে শুরু করেন নেশা দ্রব্য জিনিস বিক্রি। কেবল তা-ই নয়, স্ত্রী কেও যুক্ত করেন ভিক্ষা বৃত্তি জন্য। নেশা দ্রব্য বিক্রি করে যা টাকা পায় তা দিয়ে সোহাগ নেশা করেন।

 

দৈনিক দুই বেলা ইয়াবা অথবা হেরোইন লাগে সোহাগের। ভাত না খেলেও চলে কিন্তু হেরোইন অথবা ইয়াবা ছাড়া চলে না। পারিবারিক ভাবে সোহাগ ৩ বছর আগে দাম্পত্য জীবন শুরু হলেও বর্তমান নেশার আগুনে পুড়ে ছারখার হলো সব। তার বাড়ি-ঘর ছিল সান্তাহার রথবাড়ীতে কিন্তু নেশার কারনে সব বিক্রয় করছে। শুক্রবার দুপুরে বগুড়ার আদমদীঘি উপজেলার সান্তাহার পৌর শহরের হবির মোড় নামক স্থানের অনিকা ফিলিং ষ্টেশনে পার্শ্বে একটি কুড়ে ঘরে গিয়ে ববি বেগমের সাথে কথা বলে এসব তিনি তথ্য জানায়।

ববি বেগম আরোও জানায়, সারা দিনের ভিক্ষা করেন যা পায় সেটা দিয়ে রান্না করে খায়। তবে রাতের বেলা বৃষ্টি হলে অনেক কষ্ট করে থাকতে হয় কারন এই ঘরে তো আর বৃষ্টির পানি আটকে থাকে না। সমাজের অনেক সার্মথ্যবান মানুষ আছে যদি কেউ আমাকে একটি ঘর তৈরী করে দিতো তাহলে ছোট এই বাচ্চা নিয়ে রাতে শান্তিতে ঘুমাতে পারতাম। তাইতো আমি সমাজের সার্মথ্যবান মানুষের কাছে আকুল আবেদন যেন আমাকে একটি ঘর তৈরী করে দেয়।

শেয়ার করুন আপনার পছন্দের সোশ্যাল মিডিয়ায়
error: Content is protected !!