হোম » প্রধান সংবাদ » শ্রীমঙ্গলে আটক আসামীর স্বীকারোক্তি চোরের অপবাদ সইতে না পেরে শিশু হত্যা

শ্রীমঙ্গলে আটক আসামীর স্বীকারোক্তি চোরের অপবাদ সইতে না পেরে শিশু হত্যা

 এম এ কাদির চৌধুরী ফারহান: মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গলে পাঁচ বছরের শিশু লিমন হত্যার দায়ে ইউনুস নামে এক ব্যক্তিকে আটক করেছে পুলিশ। আটককৃত ইউনুস স্বীকার করেছে,চোরের অপবাদ সইতে না পেরে সে শিশুটিকে কুপিয়ে হত্যা করে। গত মঙ্গলবার উপজেলার বিলাস ছড়া চা বাগানে লিমন গড় (৫) নামে শিশুটির গলাকাটা লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। সে ওই বাগানের শিবু গড়’র ছেলে। বুধবার শ্রীমঙ্গল থানা পুলিশ আটককৃত ইউনুসকে মৌলভীবাজার জেলা আদালতে প্রেরন করলে, সে আদালতে স্বীকারক্তিমূলক জবানবন্দি দেয়।
 ইউনুসকে আদালতকে জানায়, বেশ কিছু মাস আগে নিহত শিশুর পিতা শিশু গড়ের রিক্সার একটি ব্যাটারি চুরির অপরাধে ৫ হাজার টাকা জরিমানা করে স্থানীয় ইউপি মেম্বার। কিন্তু সে টাকা দিতে পারে নি। এজন্য গ্রামের লোকজন তাকে প্রায়ই চোর বলে সম্মোধন করা হতো। এই অপমানেই সে মঙ্গলবার দুপুর ৩টার দিকে শিশুটিকে পাখি শিকার করার কথা বলে চা বাগানে নিয়ে যায়। এবং সেখানে দা দিয়ে কুপিয়ে গলা কেটে হত্যা করে।
স্থানীয়রা জানান, ঘটনার দিন প্রতিদিনের মতো শিশুটি দুপুর ১টার দিকে ঘর থেকে খেলার জন্য বাহিরে বের হয়। ঘর থেকে বের হওয়ার পর থেকেই শিশুটিকে আর কোথাও খুঁজে পাওয়া যাচ্ছিল না। অনেক খোঁজাখুঁজির পর বাড়ি থেকে প্রায় দুই কিলোমিটার দূরে চা বাগানের ভেতর ছড়ার পাশে ঝোপের মধ্যে শিশুটির অর্ধ গলাকাটা লাশ পড়ে থাকতে দেখে স্থানীয়রা।
এ ঘটনা থানা পুলিশকে জানালে মৌলভীবাজার জেলার সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার মো. আশরাফুজ্জামান সার্কেল (শ্রীমঙ্গল-কমলগঞ্জ) এর নেতৃত্বে শ্রীমঙ্গল থানার অফিসার ইনচার্জ আব্দুছ ছালেক সহ পুলিশের একটি টিম ঘটনাস্থল থেকে শিশুটির অর্ধ গলাকাটা লাশ উদ্ধার করে।
শ্রীমঙ্গল থানার অফিসার ইনচার্জ আব্দুছ ছালেক বলেন, আটককৃত ব্যক্তি এই হত্যাকান্ডের সাথে জড়িত থাকার কথা স্বীকর করে আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছে। চোরের অপবাদ সইতে না পেরে সে শিশুটির বাবার উপর রাগের বসবর্তি হয়ে শিশু লিমনকে চা দিয়ে কুপিয়ে নৃশংস ভাবে হত্যা করে। শিশুর লাশ উদ্ধার করার পর (বুধবার) ময়নাতদন্তের জন্য মৌলভীবাজার সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে ।
শেয়ার করুন আপনার পছন্দের সোশ্যাল মিডিয়ায়
error: Content is protected !!