হোম » সারাদেশ » তারাবির নামাজ পর ৫০ টাকা : ১ ঘন্টার ব্যবধানে কলার দাম হালিতে ২০ টাকা বৃদ্ধি

তারাবির নামাজ পর ৫০ টাকা : ১ ঘন্টার ব্যবধানে কলার দাম হালিতে ২০ টাকা বৃদ্ধি

গোলাম রব্বানী দুলাল, আদমদীঘি (বগুড়া) প্রতিনিধি : আজ থেকেই শুরু হচ্ছে মুসলমানদের পবিত্র ইবাদতের মাস। প্রথম রোজা ভালোভাবে পালন করতে যে যার সাধ্যমতো কিনছেন বিভিন্ন রকমের ফলমূল। আর এই সুযোগকে কাজে লাগিয়ে কৃত্রিম সংকট তৈরি করে বাড়ানো হচ্ছে জিনিষপত্রের দাম। সুযোগ বুঝে যে যেভাবে পারে দাম নিচ্ছে। অসহায় ক্রেতারাও পণ্য কিনছে তাদের চাহিদার মূল্যে। রমজান শুরুর আগের রাতেই কয়েক ঘন্টার ব্যবধানে কলার দাম বাড়িয়ে দিয়েছে অসাধু ব্যবসাীরা।

বগুড়ার আদমদীঘির সান্তাহারে তারাবির নামাজের আগে যে কলার হালি ছিল ৩০ টাকা, নামাজের পর সেই কলার হালি ৫০ টাকায় কিনতে হয়েছে ক্রেতাদের। মাত্র এক ঘন্টার ব্যবধানে প্রতি হালি কলায় দাম বেড়েছে ২০ টাকা। তাই ঝড়ের গতিতে বাড়ানো দাম নিয়ন্ত্রণে ও প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করছেন ক্রেতারা।

কলা ব্যবসায়ীরা বলছেন, কিনতে হয় বেশি দাম দিয়ে, তাই বিক্রি করার সময় হাতে কিছু টাকা রেখে বিক্রি করতে হচ্ছে।

সোমবার (১১ মার্চ) রাতে শহরের রেলগেট এলাকায় ঘুরে দেখা গেছে এমন চিত্র। তবে, ক্রেতা ও কিছু ব্যবসায়ীরা বলছেন, ক্রেতাদের অতিরিক্ত চাহিদা থাকায় কিছু সংখ্যক অসাধু ব্যবসায়ী এ সুযোগ নিচ্ছেন।

এ দিন তারাবির নামাজের আগে ও পরে শহরের কয়েকটি দোকান ঘুরে দেখা গেছে, প্রকারভেদে প্রতি হালি মানিক কলার দাম ২৫ থেকে ৫০ টাকা, সাগর কলার দাম ৩০ থেকে বেড়েছে ৬০ টাকা। যে কলার হালি নামাজে আগেও বিক্রি হয়েছিল ২৫ থেকে ৩০ টাকা, সেই কলার হালি নামাজের পর বিক্রি হয়েছে ৫০ থেকে ৬০ টাকায়।

পবিত্র রমজান মাসকে ঘিরে দাম বৃদ্ধির এমন অস্থিরতায় ইফতারির তালিকায় কলা রাখার ইচ্ছে মিটে গেছে অনেক ক্রেতার । রমজান মাসে কলার চাহিদা বাড়ার সুযোগকে কাজে লাগিয়ে অসাধু ব্যবসায়ীরা দাম বাড়িয়ে দিয়েছে ইচ্ছে মতো। কলা বুঝে হালিতে বিক্রি হচ্ছে ৫০ থেকে ৬০ টাকা দরে ফলে এই কলা কিনতে গিয়েই অনেকই হিমশিম খাচ্ছেন।

সান্তাহার পৌর শহরের রেলগেটে কলা কিনতে আসা বাবু ডালি নামের এক ক্রেতা বলেন, নামাজ পড়ে যাওয়ার আগে কলার দাম শুনে গেছি প্রতি হালি ৩০ টাকা। নামাজ শেষ করে কলা কিনে বাড়ি যাবো ভেবে নামাজের পর এসে দাম শুনি প্রতি হালি ৫০ টাকা। নামাজ পড়ার ব্যবধানেই প্রতি হালিতে ২০ টাকা বেড়ে গেলো, এটা কি ভাবে মেনে নেওয়া যায়?

ফিরোজ হোসেন নামের আরেক ক্রেতা বলেন, গতকাল যে কলা ২৫ থেকে ৩০ টাকা হালিতে কিনেছি সেই কলার দাম এখন ৫০ থেকে ৬০ টাকা। রোজার কারণে কলার চাহিদা বেড়ে যাওয়াই কলার দামও বেড়ে দিয়েছে এইসব ব্যবসায়ীরা।

একাধিক কলা বিক্রেতারা বলেন, কলার আড়তে দাম বাড়ার কারণে আমরা বেশি দামে কলা কিনছি যার কারণে কলা বেশি দামে বিক্রয় করতে হচ্ছে। তবে নামাজের আগে কলার দাম ৩০ টাকা থাকলেও নামাজের পড় কলার দাম বেড়ে যাওয়ার বিষয়টি তারা অস্বীকার করে বলেন দাম আরও আগেই বেড়েছে।

error: Content is protected !!