হোম » খেলা » টাঙ্গাইলে বঙ্গবন্ধু ম্যারাথন অনুষ্ঠিত

টাঙ্গাইলে বঙ্গবন্ধু ম্যারাথন অনুষ্ঠিত

অর্ণব আল আমিন,টাঙ্গাইল প্রতিনিধিঃ বঙ্গবন্ধুর জন্মদিন উপলক্ষে টাঙ্গাইলের সখীপুরে ‘বঙ্গবন্ধু বাসাইল-সখীপুর হাফ ম্যারাথন’ অনুষ্ঠিত হয়েছে। বৃহস্পতিবার (১৭ মার্চ) সকালে সখীপুর উপজেলার কোকিলাপাবর এলাকায় শহীদ মিনার চত্বর থেকে শুরু হয়ে আমতৈল ঘুরে একই জায়গায় গিয়ে এ ম্যারাথন শেষ হয়। এতে দেশের ৫ শতাধিক রানার অংশগ্রহণ করেন। কাকডাকা ভোরে পাহাড়ি জনপথের পিচঢালা রাস্তায় নারী-পুরুষ রানারদের ম্যারাথন দেখতে সড়কের দু’পাশে মানুষের ঢল নামে।

বাসাইল-সখীপুর রানার্সের উদ্যোগে এ ম্যারাথনের আয়োজন করা হয়। এতে পৃষ্টপোষকতায় ছিলেন ডেসকো বোর্ডের পরিচালক ও আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় উপ-কমিটির তথ্য ও গবেষণা বিষয়ক সদস্য ইঞ্জিনিয়ার আতাউল মাহমুদ। সকাল সাড়ে ৬টায় ম্যারাথনটির উদ্বোধন করেন ইঞ্জিনিয়ার আতাউল মাহমুদ। এ সময় উপজেলা নির্বাহী অফিসার ফারজানা আলমের সভাপতিত্বে উপস্থিত ছিলেন করটিয়া সা’দত কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ প্রফেসর আলীম মাহমুদ, বোয়ালী ডিগ্রী কলেজের অধ্যক্ষ সাইদ আজাদ, ইঞ্জিনিয়ার আতাউল মাহমুদের সহধর্মিনী রুনা লায়লা রুমা প্রমুখ। পরে সেখানে আলোচনা সভা শেষে প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণকারীদের মধ্যে পুরস্কার বিতরণ করা হয়। দীর্ঘদিন করোনার কারণে ঘরবন্দি থাকার পর ম্যারাথনে অংশগ্রহণ করতে পেরে খুশি রানাররা। প্রতিবছরই এ ম্যারাথন আয়োজনের দাবি তাদের।

সিলেট থেকে আসা নারী রার্নার নাছরিন বেগম বলেন, ‘আমি দেশের বিভিন্ন জায়গায় ম্যারাথন প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করে থাকি। এছাড়াও দেশের বাইরেও ম্যারাথনে অংশ গ্রহণ করেছি। এসব প্রতিযোগিতায় অংশ গ্রহণ করে আমি একাধিকবার পুরস্কার পেয়েছি। সখীপুরের ম্যারাথনে অংশগ্রহণ করতে পেরে আমি আনন্দিত।’ ঢাকা থেকে আসা মাফিয়া ইসলাম উর্মি বলেন, ‘সখীপুরে গজারী বনের ভিতর দিয়ে এমন ম্যারাথনের আয়োজন মনোমুগ্ধকর। গতবছরও এখানে ম্যারাথনে অংশগ্রহণ করেছিলাম। ছোট বেলা থেকেই বাবা-মায়ের সঙ্গে দেশের বিভিন্ন জায়গায় ম্যারাথনে অংশ গ্রহণ করে আসছি। প্রথম হয়ে পুরষ্কারও পেয়েছি একাধিকবার। সখীপুরের পরিবেশটা অনেক সুন্দর। তাই প্রতিবছর এখানে ম্যারাথন আয়োজন করার দাবি জানাচ্ছি।

নেত্রকোণা থেকে আসা রার্নাস গ্রুপের মডারেটর ঝিনুক মাহমুদ বলেন,আমরা দৌড়ের সাথে অনেক দিন ধরে জড়িত রয়েছি।দেশের বিভিন্ন প্রান্তে আমরা দৌড় প্রতিযোগিতায় অংশ গ্রহণ করি।আজ বঙ্গবন্ধুর জন্মদিনে বাসাইল-সখীপুরে ম্যারাথন দৌড় প্রতিযোগিতায় অংশ গ্রহণ করতে পেরে ভালো লাগছে।বন-জঙ্গলের ভিতর দিয়ে দৌড়াতে পেরে অনেক ভালো লাগছে।এলাকার মানুষ আমাদের উৎসাহ দিয়েছেন।

ঢাকা থেকে আসা রার্নার নার্গিস ওহাব নদী বলেন, আজ ম্যারাথন দৌড় প্রতিযোগিতায় বাংলাদেশের বেস্ট দৌড়বিদরা এখানে এসেছেন।জাতীয় পর্যায়ের দৌড়বিদরা অংশ নিয়েছেন।বাসাইল-সখীপুরে যে দৌড় প্রতিযোগিতা হয়েছিল গতবছর ২১ কিলোমিটার ক্যাটাগড়িতে আমি চ্যাম্পিয়ন হয়েছিলাম।আজ ১০ কিলোমিটার ম্যারাথন দৌড় প্রতিযোগিতায় দৌড়বিদরা যে আনন্দ করছে, আমাদের খুব ভালো লাগছে। গ্রামের মানুষরা আমাদের খুব উৎসাহ দিয়েছেন।আমি আশা করি বঙ্গবন্ধুর জন্মদিনে প্রতি বছর যেনো এরকম আয়োজন এখানে হয়।প্রতি বছর যেনো দৌড়বিদদের মিলনমেলায় পরিণত হয়।

ম্যারাথনের পৃষ্টপোষক ইঞ্জিনিয়ার আতাউল মাহমুদ বলেন, ‘জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমানের জন্মদিনটিকে উৎসবমূখর করার জন্য এ প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয়েছে। এ দিন ১০ কিলোমিটার ম্যারাথন অনুষ্ঠিত হয়। এর আগেও ম্যারাথনের আয়োজন করা হয়েছিল। মূলত মাদক ও সন্ত্রাস মুক্ত, দুর্নীতি, দুর্বৃত্তায়ন মুক্ত এবং বাল্যবিয়ে মুক্ত করার লক্ষে এমন আয়োজন। সকলের সহযোগিতা পেলে এ ধরনের আয়োজন অব্যাহত থাকবে।

শেয়ার করুন আপনার পছন্দের সোশ্যাল মিডিয়ায়
error: Content is protected !!