JavaScript must be enabled in order for you to see "WP Copy Data Protect" effect. However, it seems JavaScript is either disabled or not supported by your browser. To see full result of "WP Copy Data Protector", enable JavaScript by changing your browser options, then try again.

৭ ডিসেম্বর: এই দিনে

আওয়াজ অনলাইন : এক নজরে দেখে নিন ৭ ডিসেম্বর ইতিহাসের এ দিনে ঘটে যাওয়া উল্লেখযোগ্য ঘটনা, বিশিষ্টজনের জন্ম-মৃত্যুদিনসহ আরও গুরুত্বপূর্ণ কিছু বিষয়।

ঘটনাবলি :
১৭৮২- সালের এই দিনে টিপু সুলতান ভারতের মহীশুরের রাজা হিসেবে ক্ষমতা গ্রহণ করেন।
১৮৮৯- সালের এই দিনে পৃথিবীর প্রথম অটোমোবাইল তৈরি হয়।
১৮৫৬- সালের এই দিনে রাজকৃষ্ণ বন্দ্যোপাধ্যায়ের গৃহে প্রথম বিধিসম্মত হিন্দু-বিধবা বিবাহ।
১৮৭২- সালের এই দিনে বাংলায় প্রথম নাট্যশালা ন্যাশনাল থিয়েটার প্রতিষ্ঠিত এবং দীনবন্ধু মিত্রের নাটক নীল দর্পণ অভিনীত।
১৯১৭- সালের এই দিনে মার্কিন সরকার অস্ট্রিয়ার বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণা করে।
১৯৭০- সালের এই দিনেসাধারণ নির্বাচনে পাকিস্তানের জাতীয় পরিষদে আওয়ামী লীগের নিরঙ্কুশ সংখ্যাগরিষ্ঠতা লাভ।
১৯৭২- সালের এই দিনে চাঁদে অ্যাপোলোর শেষ অভিযান অ্যাপোলো-১৭ এর যাত্রা শুরু।
১৯৮৫- সালের এই দিনে ঢাকায় প্রথম সার্ক শীর্ষ সম্মেলন।

জন্ম :
১৮৭৯ – সালের এই দিনে বাঘা যতীন, একজন বাঙালি বিপ্লবী।
১৯২৮ – সালের এই দিনে মার্কিন ভাষাতাত্ত্বিক নোয়াম চমস্কির জন্ম।

মৃত্যু :
১৭৮২ – সালের এই দিনে মহীশুরের বীর যোদ্ধা হায়দার আলী।
১৯৯১ – সালের এই দিনে রাজনীতিবিদ আতাউর রহমান খান।
২০১৪ – সালের এই দিনে কিংবদন্তী খলনায়ক খলিল উল্লাহ খান।
সম্পাদনা: এম হিরন প্রধান।

পালিত হলো স্বৈরাচার পতন দিবস
আওয়াজ অনলাইন : ৬ ডিসেম্বর, স্বৈরাচার পতন দিবস ও গণতন্ত্র মুক্তি দিবস। ১৯৯০ সালের এই দিনে ছাত্র-জনতার উত্তাল গণ-আন্দোলনের মুখে পদত্যাগে বাধ্য হন স্বৈরশাসক এইচ এম এরশাদ। এরশাদের পতনের মধ্য দিয়ে মুক্তি পায় গণতন্ত্র। ১৯৮২ সালের এই দিনে এইচ এম এরশাদ রাষ্ট্রক্ষমতা দখল করেন।

১৯৮৩ সালের মধ্য ফেব্রুয়ারি থেকেই ছাত্রসমাজ শুরু করে এরশাদ বিরোধী আন্দোলন। দীর্ঘ আট বছর ধরে স্বৈরাচার বিরোধী আন্দোলন চলতে থাকে রাজপথে। বিএনপির নেতৃত্বে সাত দলীয়, আওয়ামী লীগের নেতৃত্বে আট দলীয় এবং বাম দলগুলোর পাঁচ দলীয় জোট সম্মিলিতভাবে ১৯৯০ সালে এরশাদ সরকারের বিরুদ্ধে তীব্র আন্দোলন গড়ে তোলে।
আন্দোলন করতে গিয়ে প্রাণ হারান নূর হোসেন, সেলিম, দেলোয়ার, ডা. মিলনসহ নাম না জানা অনেক অকুতোভয় মানুষ।

আওয়ামী লীগ ও বিএনপি নেতৃত্বোধীন জোটের টানা কর্মসূচির কারণে ক্ষমতা ছাড়তে বাধ্য হন এরশাদ। ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ দিবসটি পালন করে ‘গণতন্ত্র মুক্তি দিবস’ হিসেবে। বিএনপি পালন করে ‘স্বৈরাচার পতন ও গণতন্ত্র মুক্তি দিবস’ হিসেবে। আর এরশাদের দল জাতীয় পার্টি (জাপা) দিবসটি পালন করে ‘সংবিধান সংরক্ষণ দিবস’ হিসেবে।

জাপার নবনিযুক্ত মহাসচিব মশিউর রহমান রাঙ্গা এক বিবৃতিতে ‘সংবিধান সংরক্ষণ দিবস’ পালনের জন্য দলের জেলা ও উপজেলাসহ সর্বস্তরের কমিটিকে অনুরোধ করেছেন।
দিবসটি উপলক্ষে এক বাণীতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গণতন্ত্রের ভিত্তিকে আরো শক্তিশালী করে দেশের উন্নয়ন ও জনগণের কল্যাণে সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করার আহবান জানিয়েছেন।

গণতন্ত্রের অতন্দ্র প্রহরী সংগ্রামী দেশবাসীকে আন্তরিক শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, নব্বই পরবর্তী দুই দশকে আওয়ামী লীগ গণতন্ত্র ও ভোটাধিকার রক্ষায় দায়িত্বশীল ভূমিকা রেখেছে। সংবিধানের পঞ্চদশ সংশোধনীর মাধ্যমে অবৈধ ক্ষমতা দখলের পথ রুদ্ধ হয়েছে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, কোনো ষড়যন্ত্রই আমাদের সত্য ও ন্যায় এবং মানুষের অধিকার প্রতিষ্ঠার পথ থেকে বিচ্যুত করতে পারবে না।

দিনটি সামনে রেখে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর পৃথক বাণীতে বলেছে, শত শহীদের রক্তের বিনিময়ে অর্জিত গণতন্ত্র এখনো শঙ্কামুক্ত নয়।

দিবসটি উপলক্ষে বিএনপিসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক দল পৃথক কর্মসূচি পালন করে।
/এইচ.

আইপিএল থেকে চার তারকার নাম প্রত্যাহার
আওয়াজ অনলাইন : ১৮ ডিসেম্বর জয়পুরে বসবে দ্বাদশ আইপিএলের নিলামের আসর। তার আগে আইপিএলের নিলাম তালিকা থেকে নাম প্রত্যাহার করে নিয়েছেন অস্ট্রেলিয়ার চার তারকা ক্রিকেটার। আগের দিন অ্যারন ফিঞ্চ ও গ্লেন ম্যাক্সওয়েল নিজেদের নাম প্রত্যাহার করে নিলে পরের দিন তালিকা থেকে নিজেদের সরিয়ে রাখতে অনুরোধ করেন পেসার মিচেল স্টার্ক এবং প্যাট কামিন্স।

গত মৌসুমে ফিঞ্চ খেলেছেন কিংস ইলেভেন পঞ্জাবের জার্সিতে। আর ম্যাক্সওয়েল ছিলেন দিল্লি ডেয়ারডেভিলসে (নাম বদলে দিল্লি ক্যাপিটালস)। একজনও সেভাবে পারফর্ম করতে পারেননি। দশ ম্যাচে ১৩৪ রান করেন ফিঞ্চ। ম্যাক্সওয়েল করেন ১২ ম্যাচে ১৬৯ রান।

গতবার ইনজুরির কারণে খেলা হয়নি স্টার্ক এবং কামিন্সের। জাতীয় দলের ঠাসা ক্রীড়াসূচির কথা মাথায় রেখে ম্যাক্সওয়েল ও অ্যারন ফিঞ্চ এবার আইপিএল নিলাম থেকে নিজেদের সরিয়ে নিয়েছেন বলে জানা যায়। আর আইপিএলের চেয়ে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটেই মনোনিবেশ করতে চান এই চার তারকা অজি ক্রিকেটার।
/এইচ.

সিআইডির ডিআইজি মোশাররফ হোসেন আর নেই
এম হিরন প্রধান : সিআইডির ডিআইজি মো. মোশাররফ হোসেন ভূঁঞা পিপিএম গতকাল ৬ ডিসেম্বর বৃহস্পতিবার সকাল ০৭.৪০ মিনিটে চিকিত্সাধীন অবস্থায় রাজধানীর এ্যাপোলো হাসপাতালে ইন্তেকাল করেছেন (ইন্নালিল্লাহে………..রাজিউন)। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৫৮ বছর। তিনি স্ত্রী, এক পুত্র ও এক কন্যাসহ বহু আত্মীয়-স্বজন এবং গুণগ্রাহী রেখে গেছেন।

মোশাররফ হোসেন ভূঁঞা ১৯৮৮ সালের ১৫ ফেব্রুয়ারি সহকারী পুলিশ সুপার হিসেবে বিসিএস (পুলিশ) সার্ভিসে যোগদান করেন। তিনি দীর্ঘ কর্মজীবনে সাতক্ষীরা, খুলনা ও মানিকগঞ্জ জেলার পুলিশ সুপার হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। ডিআইজি হিসেবে তিনি বরিশাল ও সিলেট রেঞ্জ, স্পেশাল ব্রাঞ্চ ও সিটিএসবি’তে অত্যন্ত সুনাম ও দক্ষতার সাথে দায়িত্ব পালন করেন।

মোশাররফ হোসেন ভূঁঞা জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা মিশনেও তার কর্মদক্ষতার উজ্জ্বল স্বাক্ষর রাখতে সক্ষম হয়েছেন। তিনি গাজীপুর জেলার সদর উপজেলার বড়দল গ্রামে এক সম্ভ্রান্ত মুসলিম পরিবারে ১৯৬০ সালে জন্মগ্রহণ করেন।

সাহিত্যানুরাগী মোশাররফ হোসেন ভূঁঞা অর্ধযুগেরও বেশি সময় ধরে বাংলাদেশ পুলিশের প্রকাশনা‘ডিটেকটিভ’পত্রিকার সম্পাদক হিসেবে দায়িত্বরত ছিলেন। বাংলা সাহিত্যে রয়েছে তাঁর অনন্য অবদান। তাঁর প্রকাশিত ৪০টি গ্রন্থের মধ্যে ২৫টি কাব্যগ্রন্থ, ৩টি উপন্যাস, ৯টি শিশুতোষ গ্রন্থ ও ৩টি গবেষণাধর্মী গ্রন্থ রয়েছে।

মরহুমের নামাজে জানাজা বৃহস্পতিবার বাদ জোহর রাজারবাগ পুলিশ লাইনসে্ এসআই শিরুমিয়া মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত হয়। জানাযায় বাংলাদেশ পুলিশের ইন্সপেক্টর জেনারেল (আইজিপি) ড. মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারী, বিপিএম (বার), ঢাকাস্থ পুলিশের বিভিন্ন ইউনিটের প্রধানগণ, ঊর্ধ্বতন পুলিশ কর্মকর্তাবৃন্দ, পুলিশ সদস্যগণ, মরহুমের সহকর্মীবৃন্দ এবং আত্মীয়-স্বজন অংশগ্রহণ করেন।

নামাজে জানাজা শেষে বাংলাদেশ পুলিশের পক্ষে আইজিপি ড. মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারী, বিপিএম (বার), সিআইডির অতিরিক্ত আইজিপি শেখ হিমায়েত হোসেন, ‘ডিটেকটিভ’এর প্রধান সম্পাদক মোঃ মোখলেসুর রহমান এবং ব্যবস্থাপনা সম্পাদক হাবিবুর রহমান, বাংলাদেশ পুলিশ সার্ভিস এসোসিয়েশনের সভাপতি মোঃ আছাদুজ্জামান মিয়া ও সাধারণ সম্পাদক প্রলয় কুমার জোয়ারদার মরহুমের কফিনে পুষ্পস্তবক অর্পণ করে তাঁর প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। একটি সুসজ্জিত পুলিশ দল মরহুমকে ফিউনারেল গার্ড অব অনার প্রদান করে। এ সময় বিউগলে করুণ সুর বাজানো হয়।

মরহুমের মোশাররফ হোসেন ভূঁঞা মরদেহ তাঁর গ্রামের বাড়ি গাজীপুরে নেয়া হয়েছে। সেখানে দ্বিতীয় জানাজা শেষে আজ বাদ মাগরিব পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়েছে।

জনাব মো. মোশাররফ হোসেন ভূঁঞার মৃত্যুতে আইজিপি ড. মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারী, বিপিএম (বার) গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন। তিনি মরহুমের বিদেহী আত্মার মাগফেরাত কামনা করেন এবং শোক সন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি সমবেদনা জানান। এইচ.

 

সংবাদ পড়ুন, লাইক দিন এবং শেয়ার করুন

Comments

comments

About আওয়াজ অনলাইন

x

Check Also

মোঃ আঃ কুদদূস এর নতুন কবিতা”দিশারী”

ভালোবাসা ভুলে মায়ার বাঁধন তুলে যে পাখি উড়ে যায় বনে আপন ভূবনে নিরন্তর নিরালায় সাধ্য ...

error: Content is protected !!