হোম » অপরাধ-দুর্নীতি » হিন্দু পরিবারের জমি ভুয়া নামজারির মাধ্যমে  দখলের অভিযোগ

হিন্দু পরিবারের জমি ভুয়া নামজারির মাধ্যমে  দখলের অভিযোগ

মোরেলগঞ্জ (বাগরেহাট) প্রতিনিধি: বাগেরহাটের মোরেলগঞ্জে বারইখালী ইউনিয়নের উত্তর সুতালড়ী গ্রামে একাধিক হিন্দু পরিবারের জমি ভুয়া নামজারির মাধ্যমে দখলের অভিযোগ উঠেছে।
৯৯ নং উত্তর সুতালড়ী মৌজা,বারইখালী ইউনিয়নে একটি সংঘবদ্ধ চক্রের যোগসাজশে শিক্ষক  রাম চন্দ্র ঢালী গং ও জতিন্দ্রে নাথ ঢালী গং এর র্পূব পুরুষ প্রসন্ন ঢালীর নামে সিএস রর্কেডরে ১২৬ নং খতয়িানরে ২.৬০ এবং বি আর.এস রেকর্ডের ২৩১৮ ও ৩৮নং খতিয়ানে এদরে নামের জমি  জাল জালিয়াতি মাধ্যমে নামজারি দিয়ে ২.৬০ একর জমি হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগ উঠেছে ।
এ বিষয়ে মোরেলগঞ্জ  উপজলো  কর্মকর্তার  কাছে (১৭ সপ্টেম্বের)  রোববার উক্ত অভিযোগটি দায়ের করেন মৃত রাম চন্দ্র ঢালীর  পুত্র  শিব সজল যীশু ঢালী এবং জতিন্দ্রে নাথ ঢালী এর ওয়ারশে অমিও রঞ্জন ঢালী এর পুত্র   অঞ্জন ঢালী ও সঞ্জীব ঢালী। অভিযোগে উল্লেখ আছে, শিব সজল যীশু ঢালী ও অঞ্জন ঢালী ও সঞ্জীব ঢালী এর র্পূব পুরুষ সি এস রর্কেড হবার আগে থেকেই মালিক থাকায় সেই স্থানে পাচশত বছর ধরে ঘর তুলে বসবাস করে আসছে এবং র্বতমানে বসবাস করছেন।
ভুলক্রমে এস, এ ৩৪ নং খতিয়ানে  (ভ্রমাত্মক)  অন্নদা চরণ গং ও খোষাল চন্দ্ররে নামে  রেকর্ড  হয়। সেই রেকর্ড আমাদের দৃষ্টিগোচর না হওয়ায়, এ ভাবেই রয়ে যায়, সংশোধন হয় নাই।সেই রেকর্ডের সূত্র ধরে এস,এ ৩৪ নং খতিয়ানের  জমি ভুল মউিটশেন দেখিয়ে ইউনিয়ন ভুমি অফিস এবং এসিল্যান্ড অফিস যার কোন মলিকানার অস্তত্বি নাই একই মৌজার  বাসিন্দা  মাহবুবুর রহমান,মহাসিন হাং,আবুয়াল হাং, হালিম হাওলাদার, জামাল উদ্দিন, পলাশ তালুকদার, সাহেব আলী শিকদার সরিাজ উদ্দনি ফকির,হরে কৃষ্ণ দাস যোগন্দ্রে নাথ মিস্ত্রী, আবু বকর সিদ্দিক,অন্যদা চরন,আব্দুল মালেক ও পরীক্ষিত মিস্ত্রি, পান্না , সেকেন্দার হাওলাদার, মস্ত্রিী সহ আরো অন এই জায়গা দখল করে আছে,এ বিষয়ে স্হানীয় পর্যায়ে কয়েকবার বৈঠক হয়েছে কিন্তু কোন সুরাহা হয় নি,গত ৩ সেপ্টেম্বর সকাল ১১ টায়  স্হানীয় ইউপি কার্যালয়ে আওয়ামীলীগের একটি মতবিনিময় সভায় অভিযোগকারীদের একজন শীব সজল জিশু ঢালী অংশগ্রহন করলে তখন পুর্ব শত্রুতার জের ধরে দখলকারীদের পক্ষে একটি মাদ্রাসার শিক্ষক সেলিম হাওলাদার শিব সজল জিশু  ঢালীকে স্হানীয় ইউনিয়ন পরিষদ কার্যালয়ে বসে অপমান,গালমন্দ এক পর্যায়ে গায়ে হাত তুলে বের করে দেন।এ ঘটনা স্হানীয় হিন্দু মহলে জানাজানি চরম ক্ষোভের সৃষ্টি হয়।
এ বিষয়ে বারইখালী ইউনিয়ন আওয়ামীলীগরে আহবায়ক বীর মুক্তিযোদ্ধা আঃ জলিল খান বলেন,ঘটনাটা শুনেছি,ওই শিক্ষকের বিরুদ্ধে অনেক অভিযোগ আছে।
অভিযোগের ব্যাপারে মোরেলগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এস এম তারেক সুলতান বলেন,জমি দখল এবং ভুয়া নামজারির অভিযোগ পেয়েছি,সঠিক তদন্ত করে ব্যাবস্হা নেয়া হবে।

Loading

error: Content is protected !!