হোম » অপরাধ-দুর্নীতি » ভৈরবে ভুল চিকিৎসায় প্রসূতির মৃত্যু, মৃত রোগীকে জীবন্ত সাজিয়ে স্বজনদের বোকা বনানোর চেষ্টা

ভৈরবে ভুল চিকিৎসায় প্রসূতির মৃত্যু, মৃত রোগীকে জীবন্ত সাজিয়ে স্বজনদের বোকা বনানোর চেষ্টা

এম আর ওয়াসিম, ভৈরব( কিশোরগঞ্জ) প্রতিনিধি : ভৈরবে মা ও শিশু জেনারেল হাসপাতালে ভুল চিকিৎসায় রানু বেগম নামের প্রসূতি মায়ের মৃত্যু হয়েছে। পরিবারের অভিযোগ ডাক্তারের ভুলের কারনেই রোগীর মৃত্যু হয়েছে । কিন্ত মৃত রোগীকে জীবিত সাজিয়ে উন্নত চিকিৎসার কথা বলে ঢাকা পাঠানোর নাটক সাজিয়ে স্বজনদের বোকা বাানোর চেষ্টা করে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ ।

শনিবার সকালে করসন ও লেসিস নামের দুটি ইনজেকশন দেয়ার ৫ মিনিটের মধ্যে শরীর কাঁপনি দিয়ে মারা যায় রোগী।। নিহতের রানু নরসিংদি জেলার রায়পুরা উপজেলার মানিকনগর গ্রামের শাহজাহানের স্ত্রী বলে যানা যায়। ঘটনার পর পর হাসপাতালের ডাক্তারগন পালিয়ে গেছে। জানা গেছে গত বৃহস্পতিবার সকালে গর্ভবতী রানু বেগমকে তার স্বজনরা ভৈরব বাসস্ট্যান্ড এলাকায় মা ও শিশু হাসপাতালে সিজারের জন্য ভর্তি করেন। হাসপাতালে ভতির্র পর যথাসময়ে এদিন দুপুরে তার সিজার হলে একটি পুত্র সন্তানের জন্ম হয়।

সিজার অপারেশন করেন হাসপাতালের ডাক্তার মোঃ শফিকুল ইসলাম এবং এনেসথিসিয়া দেন ডাক্তার রাজীব। রোগীর স্বজন সবুজ মিয়া স্বামী শাহজাহান মিয়া ও বোন ফাতমা জানান সন্তান ভূমিষ্ট হওয়ার পর মা ও শিশু সন্তান ২ জনেই সুস্হ ছিল। আজ শনিবার সকাল ১০ টার দিকে হঠাৎ রোগীর শ্বাসকষ্ট শুর“ হলে এনেসথিসিয়া ডাঃ রাজীবের নির্দেশে হাসপাতালের নার্স মোমেনা বেগম দুটি ইনজেকন দেয়ার পাঁচ মিনিটের মধ্য রোগীর মৃত্যু ঘটে । কিন্ত ডাক্তাররা মৃত্যু খবর গোপন করে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ কোনরকম কাগজপত্র বা ছাড়পত্র ছাড়াই ।

রোগীকে ঢাকায় পাঠাতে হবে বলে তারা আমাদেরকে না জানিয়ে মাকে সাথে নিয়ে তাদের নিজস্ব এ্যাম্বুলেন্সে তড়িঘড়ি করে ঢাকায় পাঠিয়ে দেয়ার জন্য হাসপাতাল থেকে এ্যাাম্বুলেন্সে করে রওনা দেয় ।
এখবর পেয়ে পথিমধ্য ঢাকা- সিলেট মহাসড়কের রায়পুরার নীলকুঠি এলাকায় তার অভিভাবকরা এম্বোলেন্সটি আটক করে দেখতে পায় মৃত রোগীকে ঢাকায় পাঠানো হচ্ছে। পরে তারা নিহত রানু বেগমের লাশসহ হাসপাতালে ফেরৎ এসে স্হানীয় সাংবাদিকদের ঘটনা অবহিত করে। হাসপাতালের নার্স মোমেনা বেগম অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন,। রোগীর শ্বাসকষ্ট বেড়ে যাওয়ায় এ্যনেসথেসিয়া ডাক্তারের পরামর্শে আমি ২ টি ইনজেকশন পুষ করি ।

এ বিষয়ে ভৈরব থানার জেষ্ট উপ-পরিদর্শক মোঃ রাসেল মিয়া জানান,ভুল চিকিৎসায় রোগীর মৃত্যুর খব পেয়ে হাসপাতালে এসেছি । রোগীরা স্বজনরা লিখিত অভিযোগ দিলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে ।এ বিষয়ে হাসপাতালের চেয়ারম্যান ডাঃ বুলবুল আহমেদকে একাধিকবার ফোন দিলেও তিনি ফোনটি রিসিভ করেননি ।

শেয়ার করুন আপনার পছন্দের সোশ্যাল মিডিয়ায়
error: Content is protected !!