হোম » প্রধান সংবাদ » শ্রী শ্রী শারদীয় দুর্গোৎসব উপলক্ষে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে (ইবি) ৯দিনের দিনের ছুটি ঘোষণা করেছে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। 

শ্রী শ্রী শারদীয় দুর্গোৎসব উপলক্ষে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে (ইবি) ৯দিনের দিনের ছুটি ঘোষণা করেছে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। 

একই সঙ্গে বিশ্ববিদ্যালয়ের আবাসিক হল বন্ধের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।বিষয়টি নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন  বিশ্ববিদ্যালয়ের অাবসিক শিক্ষার্থীর। ৩ অক্টোবর থকে ১১ অক্টোবর পর্যন্ত হল সমূহ বন্ধ থাকবে বলে জানিয়েছেন প্রভোস্ট কাউন্সিলের সভাপতি অধ্যাপক আকরাম হোসাইন মজুমদার।জানা যায়, ৬ অক্টোবর থেকে ৯ অক্টোবর পর্যন্ত মোট ৪ দিন শ্রী শ্রী দূর্গা পূজা উপলক্ষে বন্ধ থাকবে বিশ্ববিদ্যালয়। উপাচার্যের নির্বাহী আদেশে ৫ অক্টোবর সকল কার্যক্রম বন্ধ থাকবে এবং ৩, ৪, ১০, ১১ অক্টোবর সাপ্তাহিক ছুটিসহ মোট ছুটি থাকবে ৯ দিন।
১১ অক্টোবর সকাল ৯ টায় হল খোলাতে বিপাকে পড়ছে শিক্ষার্থীরা। ১২ তারিখ বিভিন্ন বিভাগে পরীক্ষা রয়েছে বলে পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক সূত্র জানা যায়।তাদের অভিযোগ, দেশের বেশির ভাগ বিশ্ববিদ্যালয়ে পূজায় আবাসিক হল বন্ধ রাখার নজির নেই। সেখানে ক্যাম্পাসে কোনো কারণ ছাড়াই ইবিতে ৯দিন হল বন্ধ রাখা হচ্ছে।বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন ও প্রাধ্যক্ষ পরিষদ নিজেদের সুবিধার জন্য এত দিন হল বন্ধ রাখছেন।
খোঁজ নিয়ে জানা যায়, বিশ্ববিদ্যালয়ের বেশির ভাগ বিভাগেই পূজার ছুটির পরপরই সেমিস্টার ফাইনাল পরীক্ষা শুরু হবে।এ ছাড়া বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীর একটা বড় অংশ টিউশন করে লেখাপড়ার খরচ বহন করেন।এতে হটাএ হল বন্ধের সিদ্ধান্তে তারাও পড়েছেন বিপাকে।আগামী বুধবার থেকে ১১ অক্টোবর পর্যন্ত ছুটি ঘোষণা করেছে কর্তৃপক্ষ। ৫ অক্টোবর একাডেমিক ক্যালেন্ডার অনুযায়ী ছুটি না থাকলেও উপাচার্য ওই দিন ছুটি ঘোষণা করে একটি বিজ্ঞপ্তি দিয়েছেন।এদিকে শনিবার ৫ অক্টোবর বিভিন্ন বিভাগের সেমিস্টার ফাইনাল পরীক্ষা স্থগিত করা হয়েছে।
ছাত্রলীগ নেত্রী মিথিলা ফারজানা লেখেন, এ সিদ্ধান্ত অধিকাংশ শিক্ষার্থীর চরম ভোগান্তির কারন। এমন অযৌক্তিক ও উদ্ভট সিদ্ধান্ত নেয়ার আগে শিক্ষার্থীদের কথা ভাবার দরকার ছিল। প্রশাসনের এমন সিদ্ধান্তের তীব্র নিন্দা জানাচ্ছি অাইন বিভাগের শিক্ষার্থী অাহমেদ তৌফিকুর ফেজবুক লেখেন “হটাৎ হল বন্ধের সিদ্ধান্ত মেনে নিতে পারছিনা।। আমার পরীক্ষা শুরু ১৬ অক্টোবর থেকে, প্রশাসনের সু নজর কামনা করছি’
 লোকপ্রশাসন বিভাগের শিক্ষার্থী  আখতার হোসেন আজাদ  বলেন,  পূজার ছুটিতে হল বন্ধ করার সিদ্ধান্ত আত্মঘাতী; একজন সচেতন ছাত্র হিসেবে এর নিন্দা জানাচ্ছি এবং তা প্রত্যাখ্যান করছি।অধিকাংশ বিভাগের পরীক্ষা চলছে। আশা করি, প্রশাসন এমন হঠকারি সিদ্ধান্ত পরিবর্তন করবেন।ফোকলোর বিভাগের   মোস্তফা হাবিবুল ইসলাম বলেন, ঢাবি,জাবি,রাবি,চবি, কোন বিশ্ববিদ্যালয়ে পূজার ছুটিতে কোন বিশ্ববিদ্যালয়ের হলসমৃহ বন্ধ হয় না। বরং ঈদেরদিনও জাবি ঢাবির হল খোলা থাকে রোজার সময় ২০ই রমজান পর্যন্ত সকল হল খোলা থাকে পূজার সামান্য ক’দিন ছুটিতে সকল হল কেন বন্ধ করা হবে?? প্রশাসনের হঠকারি সিদ্ধান্ত মেনে নেওয়া যায় না সামনে সকল ডিপার্টমেন্টর পরিক্ষা।
 সুদীপ্ত সাহা বলেন,মঙ্গলগ্রহের পথে এগিয়ে যাচ্ছে ইবি তাই পুজার ৪ দিনের ছুটিতে হল বন্ধ করার আত্মঘাতী সিদ্ধান্ত নিয়েছে, একজন সচেতন ছাত্র হিসেবে এর নিন্দা ও প্রত্যাখ্যান করছি।অধিকাংশ বিভাগের পরীক্ষা চলছে। আশা করি, প্রশাসন এমন হঠকারি সিদ্ধান্ত পরিবর্তন করবেন। এবং মঙ্গল গ্রহের পথে যাওয়া বন্ধ করবেন।বিশ্ববিদ্যালয়ের অাবাসিক হলসূমহ বন্ধ সম্পর্কে  প্রতিবেদক শিক্ষার্থীদের ভোগান্তির কথা নিয়ে  প্রশ্ন করলে প্রভোস্ট কাউন্সিলের সভাপতি অধ্যাপক ড. অাকরাম হোসাইন  মজুমদার বলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের
সার্বিক পরিস্থির নিরাপত্তার   কথা বিবেচনা করে প্রভোস্ট কাউন্সিল এ সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র উপদেষ্টা ও দায়িত্বরত প্রক্টর অধ্যাপক ড. পরেশ চন্দ্র বর্মণ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে শিক্ষার্থীদের সাথে কথা বলে সুষ্ঠু সমাধানের   অাশ্বস্ত প্রদান করেন।
শেয়ার করুন আপনার পছন্দের সোশ্যাল মিডিয়ায়
error: Content is protected !!