হোম » অপরাধ-দুর্নীতি » আখাউড়ায় ছাত্রীদের যৌনহয়রানির অভিযোগ -পরিচালকের বিরুদ্ধে

আখাউড়ায় ছাত্রীদের যৌনহয়রানির অভিযোগ -পরিচালকের বিরুদ্ধে

আখাউড়া (ব্রাহ্মণবাড়িয়া) প্রতিনিধি: আখাউড়ায় ছাত্রীদের যৌনহয়রানির অভিযোগ করা হয়েছে মাদরাসার পরিচালকের বিরুদ্ধে। আখাউড়া পৌরশহরের দূর্গাপুর আন নূর ইসলামিয়া মহিলা মাদরাসা ও এতিমখানার পরিচালক শওকত হোসেন রিপন (৪৫) একাধিক ছাত্রীদের যৌনহয়রানি করেছে বলে অভিযোগ করা হয়। গতকাল সোমবার এক ছাত্রীর মা বাদী হয়ে থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন।

এলাকাবাসী ও পুলিশ সূত্রে জানাগেছে, ওই মাদরাসায় ছাত্রীদের যৌনহয়রানির বিষয়টি চাউর হওয়ার পর সোমবার সকালে মাদরাসা থেকে অভিভাবকরা তাদের মেয়েদের নিয়ে যাচ্ছে। এ সময় এলাকার লোকজনও মাদরাসায় জোড় হয়। খবর পেয়ে পুলিশও ঘটনাস্থলে হাজির হলে অভিযুক্ত মাদরাসার পরিচালক শওকত হোসেন রিপন পালিয়ে যায়। রিপনের স্ত্রী মুর্শিদা বেগম ওই মাদরাসার একজন সহকারী শিক্ষিকা হিসেবে কর্মরত রয়েছেন। প্রায় ২০০ ছাত্রী অধ্যয়নরত ছিল ওই মাদরাসায়।

এ ঘটনার পর জনশূন্য হয়ে পড়েছে মাদরাসাটিতে। অভিভাবকরা অভিযোগ করেন দীর্ঘদিন ধরে পরিচালক শওকত হোসেন রিপন একাধিক ছাত্রীর স্পর্শকাতর স্থানে হাত দেয় বলে বিষয়টি মাদরাসার মালিক আছমা বেগমকে বহুবার জানিয়েছেন। আছমা বেগম অভিভাবকদের আশ্বস্ত করে বলেন রিপনের বিচার করব কিন্ত বিষয়টি যেন কাউকে না বলা হয়।  আখাউড়া পৌরশহরের দূর্গাপুর আন নূর ইসলামিয়া মহিলা মাদরাসা ও এতিমখানার মালিক আছমা বেগমের সাথে যোগাযোগ করা হলেও তাকে পাওয়া যায়নি। তার ব্যবহৃত মোবাইলও নম্বরটি বন্ধ রয়েছে।

এ বিষয়ে আখাউড়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) রসুল আহমদ নিজামী বলেন, মাদরাসার পরিচালক শওকত হোসেন রিপন একাধিক ছাত্রীকে যৌনহয়রানি করেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। ওই মাদরাসার ৬ষ্ঠ শ্রেণীর এক ছাত্রীকে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় তার স্পর্শকাতর স্থানে হাত দেয় রিপন। ওই ছাত্রী মা বাদী হয়ে থানায় অভিযোগ দিয়েছে। এ ঘটনা জানাজানি হলে রিপন পালিয়ে যায়। তাকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

শেয়ার করুন আপনার পছন্দের সোশ্যাল মিডিয়ায়
error: Content is protected !!