হোম » প্রধান সংবাদ » ভৈরবে গৃহকর্মীকে শাররীক নির্যাতন, স্বামী-স্ত্রী আটক

ভৈরবে গৃহকর্মীকে শাররীক নির্যাতন, স্বামী-স্ত্রী আটক

এম আর ওয়াসিম, ভৈরব(কিশোরগঞ্জ) প্রতিনিধি:কিশোরগঞ্জের ভৈরবে সাদিয়া বেগম (১৮) নামের গৃহকর্মীকে লাঠিপেটা ও গরম পানি ঢেলে নির্যাতন করে গৃহকর্তী  ও গৃহকর্তা।  এই ঘটনায় স্বামী- স্ত্রী কে আটক করে ভৈরব থানা পুলিশ। ভৈরব বাজারের গিয়াস উদ্দিন মিয়ার কন্যা গৃহকর্তী মেহেরুন্নেছা অপি তার স্বামী সাদলী  তুচ্ছ ঘটনা কে কেন্দ্র করে  তার পিঠে লাঠিপেটাসহ হাতে গরম পানি ঢেলে ছ্যাকা দিয়েছে বলে অভিযোগ করে কাজের মেয়ে  সাদিয়া। এমনকি স্পর্শকাতর স্থানেও লাঠির আঘাত করা অভিযোগ এনেছে সাদিয়া।

গত মঙ্গলবার (১০ সেপ্টেম্বর) রাত সাড়ে ৮টায় সাদিয়াকে ভৈরব উপজেলা স্বাস্থ্য  কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। সাদিয়ার পিতার নাম মৃত জামাল মিয়া এবং তার বাড়ি ময়মনসিংহের তারাকান্দা উপজেলার সিংগেরকান্দা গ্রামে।ঘটনা বর্ণনা করতে সাদিয়া জানায়, প্রায়  সাত বছর আগে  তার দুঃসর্ম্পকের এক খালার মাধ্যমে ভৈরব বাজারের গৃহকর্তী মেহেরুন্নেছা অপির বাসায় কাজের মেয়ে হিসেবে কাজ পায়।  প্রথম দিকে আমাকে  কাজের জন্য কোন নির্যাতন করা হতনা। কয়েক বছর যাওয়ার পর কাজ করতে গিয়ে তুচ্ছ ঘটনায় যখন তখন আমাকে  মারধরসহ প্রায়ই আমার  হাতে গরম পানি ঢেলে ছ্যাকা দিত। অনেক সময় হাত পা বেঁধে মারধর করত।

 

আমাকে বাসার বাইরে বা  বাড়িতে যেত দিতনা। উনাকে কোথাও গেলে আমাকে  বাহির থেকে তালাবন্ধ করে ঘরে রেখে যেত। গত সোমবার দিন সুকেস পরিস্কার করার সময় সুকেসের উপরে রাখা চুড়ির আলনা পড়ে গিয়ে একটা চুড়ি ভেঙ্গে গেলে আমার শাররীক নির্যাতন শুরু করে। আমি সহ্য করে না পেরে কোন রকমে পালাতে সক্ষম হয় এবং আমার দুঃসম্পর্কের খালার বাসায় আশ্রয় নিই।  শাররীক আঘাতের ব্যথা ও যন্ত্রণা সহ্য করতে না পেরে আজ হাসপাতালে ভর্তি হই। এ সময় সাংবাদিকদের উদ্দেশ্য করে সাদিয়া বলে,  আমার মত এমন অবস্থা যেন  আর কোন কাজের মেয়ের না হয় সেজন্য আমি ন্যা্য বিচার চাই।

উপজেলা স্বা কমপ্লেক্সের কর্তব্যরত ডাক্তার মোঃ ফেরদৌস জানান, তার শরীরে একাধিক আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। আঘাতগুলো গুরুত্বর বলে তাকে হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য ভর্তি করা হয়।ভৈরব থানার উপ-পরিদর্শক দেলোয়ার হোসেন জানান, খবর পেয়ে আমি হাসপাতালে গিয়ে সাদিয়ার শরীরে নির্যাতনের চিহ্ন দেখতে পায়। পরে এই ঘটনায় রাতে বেলা ভৈরব গৃহকর্তা ও গৃহকর্ত্রী কে আটক করে থানায় নিয়ে আসে পুলিশ। মামলা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে বলে জানান এস আই দেলোয়ার।

শেয়ার করুন আপনার পছন্দের সোশ্যাল মিডিয়ায়
error: Content is protected !!