হোম » প্রধান সংবাদ » ভৈরবে নিরপরাধীদের বিরুদ্ধে মামলার প্রতিবাদে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সভা।

ভৈরবে নিরপরাধীদের বিরুদ্ধে মামলার প্রতিবাদে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সভা।

এম আর ওয়াসিম, ভৈরব(কিশোরগঞ্জ) প্রতিনিধি:ভৈরবে গরুচোর  রফিক হত্যা মামলায় নিরপরাধীদের বিরুদ্ধে দায়ের করা মামলার প্রতিবাদে মানব বন্ধন ও প্রতিবাদ সভা করা হয়। আজ সকাল ১০ ঘটিকায় ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের ভৈরব দূর্জয় মোড়ে এই মানব বন্ধন ও প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত হয়। উল্লেখ্য গত ২০ আগস্ট  ভৈরবে দুর্বৃত্তদের হাতে নিহত  গরুচোর সর্দার রফিকুল ইসলামকে হত্যার  ঘটনায় ২৭ জনের বিরুদ্ধে তার স্ত্রী থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছেন। একই এলাকা মধ্যেরচর গ্রামের মোঃ লাল মিয়াকে মামলার  প্রধান আসামী করে অন্তত ১০/১২ জনকে অজ্ঞাত নামা আসামী করে এই মামলা দায়ের করে। এলাকা বাসীর অভিযোগে জানা যায় যে, রফিক নিহতের ঘটনায় অভিযুক্তরা ছাড়াও এলাকার গণ্যমান্য কতিপয় ব্যক্তি বর্গের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছে। তন্মধ্যে শিমুলকান্দি ডিগ্রী কলেজের প্রতিষ্ঠাতা সদস্য হাজী আব্দুল লতিফ মিয়া গং, সদস্য হাজী গোলাপ মিয়া গং ও মো: মস্তুো মোল্লাসহ আরো ১৬ জনের বিরুদ্ধে দায়ের করা মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবীতে অনুষ্ঠিত হয় আজকের এই মানব বন্ধন ও প্রতিবাদ সভা।

শিমুলকান্দি ইউনিয়নের আওয়ামীলীগের সভাপতি মো: আজিজ মিয়ার সভাপতিত্বে প্রতিবাদ সভায় বক্তব্য রাখেন ভৈরব পৌর আওয়ামীলীগের সা: সম্পাদক আতিক আহমেদ সৌরভ, আওয়ামীলীগের স্বাস্থ্য বিষয়ক সম্পাদক মিজানুর রহমান কবির, আগানগর ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান সেলিম আহমেদ,  শিমুলকান্দি ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান বাবুল মিয়া ও জাতীয় পার্টির নেতা মো: সালাম মিয়া প্রমুখ।

এ সময় বক্তরা বলেন রফিক ছিল একজন অান্ত:জেলা ডাকাত ও গরুচোর।  তাকে যারাই হত্যা করেছে সেটা আইন বিরুোধী হয়েছে। চোর, ডাকাত, সন্ত্রাসী ও নানা অপরাধ মূলক কাজের শাস্তি দিতে দেশে আইন -আদালত রয়েছে। আমরাও চাই রফিক হত্যার বিচার হোক। যারা প্রকৃত অপরাধী  তদন্ত করে কেবল  তাদেরই বিচার করা হোক। কিন্তু রফিক হত্যা মামলায় যারা নিরপরাধ  সমাজের গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গকে এই মামলার আসামী করা হয়েছে অতিশীঘ্রই তাদের বিরুদ্ধে দায়ের করা মামলা প্রত্যাহার করতে হবে। নতুবা পরবর্তীতে আরো কঠিন কর্মসূচী গ্রহন করা হবে বলে মতবাদ ব্যক্ত করেছেন বক্তারা।

প্রশাসন  যেন মিথ্যা হয়রানী না করে এবং তদন্ত করে প্রকৃত দোষীদের শাস্তির ব্যবস্থা করেন সেজন্য যথাযথ কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষণ করেছেন আতিক আহমেদ সৌরভ। এ বিষয়ে ভৈরব থানার ওসি তদন্ত বাহালুল খান বাহার জানান, মামলা আমার অধীনে ছিল কিন্তু বর্তমানে মামলা সিআইডিতে স্থানান্তর করা হয়েছে। এখন যা কিছু করার সিআইডি করবে।

শেয়ার করুন আপনার পছন্দের সোশ্যাল মিডিয়ায়
error: Content is protected !!