হোম » প্রধান সংবাদ » হোমনায় ধর্ষণের অভিযোগে গণপিটুনি দিয়ে  ধর্ষককে পুলিশে দিয়েছে জনতা

হোমনায় ধর্ষণের অভিযোগে গণপিটুনি দিয়ে  ধর্ষককে পুলিশে দিয়েছে জনতা

মোঃপলাশ মিয়া ,হোমনা (কুমিল্লা) প্রতিনধিঃকুমিল্লার হোমনায় নবম শ্রেণির ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে মো. শামীম (২০) নামের এক ধর্ষককে গণপিটুনি দিয়ে পুলিশে দিয়েছে  জনতা। গতকাল রবিবার উপজেলার শ্রীমদ্দি গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।  সে  শ্রীমদ্দী গ্রামের নিজ পাড়ার আবদুল লতিফের ছেলে ও হোমনা সরকারী ডিগ্রী কলেজের দ্বিতীয় বর্ষের  ছাত্র এবং বিবাহিত । মেয়েটির পারিবারিক সুত্রে জানা যায়, বখাটে শামীম পূর্বে বাড়ি লোকজনকে না জানিয়ে  কোর্টের মাধ্যমে বিবাহ করে তার স্ত্রী বাপের বাড়িতে থাকে বর্তমানে সে অন্তসত্বা। এরপর  বিয়ের বিষয়টি গোপন রেখে নবম শ্রণিতে পড়ুয়া এ মেয়েটির সাথে প্রেমের অভিনয় করে  স্কুলে যাওয়া আসার পথে  প্রেমের প্রস্তাব দেয়। মেয়েটি  তার প্রস্তাবে রাজি না হলে ভয়ভীতি দেখিয়ে  ও বিয়ের প্রলোভনে রাজি করিয়ে বিভিন্ন স্থানে নিয়ে একাধিকবার তার সাথে শারিরিক সম্পর্ক করে বখাটে শামিম।
গতকাল রবিবার রাতে মেয়েটিকে ফুঁসলিয়ে বাড়ির পাশের একটি বাগানে নিয়ে ধর্ষণ করার সময় স্থানীয় জনতা তা দেখে ফেলে।  পরে তাকে (শামীম)আটক করে গণপিটুনি দিয়ে পুলিশে খবর দেয়। পরে পুলিশের এসআই অহেদ মুরাদ তাকে গ্রেফতার করে থানায় নিয়ে যায়। এ ব্যাপারে মেয়েটির বাবা বাদী হয়ে হোমনা থানায় একটি ধর্ষণ মামলা দায়ের করেন ।মামলা নং-১ তারিখ ২/৯/২০১৯ ইং
হোমনা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) সৈয়দ মো. ফজলে রাব্বি বলেন, ধর্ষক শামীম বিবাহিত।তার স্ত্রী গর্ভবতী।  সে এ বিয়ের কথা গোপন করে বিয়ের প্রলোভনে  নবম শ্রেণিতে পড়ুয়া  আরেক মেয়ের সাথে শারিরীক সম্পর্ক করে বর্তমানে এই মেয়েটিও গর্ভবতী বলে জানা গেছে।এ ধর্ষণের ঘটনায় থানায় মামলা হয়েছে। সোমবার আসামীকে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।
শেয়ার করুন আপনার পছন্দের সোশ্যাল মিডিয়ায়
error: Content is protected !!