হোম » সারাদেশ » রাজধানীতে তীব্র শীত : জন-জীবন বিপর্যস্ত

রাজধানীতে তীব্র শীত : জন-জীবন বিপর্যস্ত

আওয়াজ অনলাইন: সারাদেশে তীব্র শীত। রাজধানী ঢাকাতে বিগত বছরের তুলনায় এবার শীত তীব্র হয়েছে। রাজধানীতেও ঘন কুয়াশা আর ঠান্ডায় জনজীবন বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে।

গতকাল ও আজ সরকারি অফিসে ছুটির দিন। সপ্তাহের ছুটির দিনগুলোতে মানুষ বিভিন্ন জায়গায় ঘুরতে যায়। কিন্তু শীত তীব্র হওয়াতে মানুষজন ঘর থেকে বের হচ্ছে না। সারাদিন গরম কাপড় মুড়িয়ে বাসায় অবস্থান করছেন। বাইরে বেড়িয়ে আসতে চাচ্ছেন না নগরবাসী।

রাজধানীর বিভিন্ন স্থানে ঘুরে দেখা যায়, শ্রমজীবী ও  খেটে খাওয়া মানুষগুলো সবচেয়ে বেশি ভোগান্তিতে আছে।

জানা যায়, এবার শীতে ঢাকায় সর্বনিম্ন ১২ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে।

আবহাওয়াবিদরা জানিয়েছে, শীতের তীব্রতা আরো অনেকদিন থাকবে । অতি সহজেই এই শীতের তীব্রতা কাটছে না।

আবহাওয়াবিদেরা জানান, শীতের এই সময়ে রাত ও দিনের তাপমাত্রার পার্থক্য ১২-১৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস থাকে। দিনে চার থেকে ছয় ঘণ্টা রোদ থাকায় ভূখণ্ড কিছুটা উত্তপ্ত হয়। এতে দিনের একটি বড় সময় শীতের অনুভূতি কম থাকে।
কিন্তু গেলো তিন দিন ধরে রাজধানী ঢাকাসহ দেশের বেশিরভাগ এলাকায় রাতের সঙ্গে দিনের তাপমাত্রার পার্থক্য কমে আসে। গতকাল শুক্রবার রাজধানীর দিন ও রাতের তাপমাত্রার পার্থক্য ছিলো আট ডিগ্রি, আর টাঙ্গাইলে ছয় ডিগ্রি সেলসিয়াসেরও কম।
কোনো এলাকার সর্বনিম্ন তাপমাত্রা কমপক্ষে টানা দুই দিন ৮-১০ ডিগ্রি সেলসিয়াসের মধ্যে থাকলে তাকে মৃদু শৈত্যপ্রবাহ বলে। তাপমাত্রা ৬-৮ ডিগ্রি সেলসিয়াসের মধ্যে থাকলে তাকে বলে মাঝারি শৈত্যপ্রবাহ, ৪-৬ হলে তা তীব্র এবং চারের নিচে হলে অতি তীব্র শৈত্যপ্রবাহ।

শনিবার সকাল ৯টায় দেওয়া আবহাওয়া অধিদপ্তরের সবশেষ পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, স্থায়ীভাবে আংশিক মেঘলা আকাশসহ সারাদেশের আবহাওয়া শুষ্ক থাকতে পারে। মধ্যরাত থেকে সকাল পর্যন্ত সারা দেশে মাঝারি থেকে ঘন কুয়াশা পড়তে পারে এবং এটি দেশের কোথাও কোথাও দুপুর পর্যন্ত অব্যাহত থাকতে পারে।

সবচেয়ে বেশি শীত পড়েছে পন্ঞ্চগড় জেলায়। নওগাঁ, দিনাজপুর, পন্ঞ্চগড়, যশোর, নীলফামারী, লালমনিরহাট ও রংপুরে সবচেয়ে শীত পড়েছে বলে জানা যায়।

রাজধানীতে শীতের তীব্রতায় মানুষজন ভিড় করছে বিভিন্ন গরম কাপড়ের দোকানে।  চাহিদা বেড়েছে কানটুপি আর মোজারও। পরিধানের জন্য সোয়েটার, জ্যাকেট, ব্লেজারের চাহিদাও চোখে পরার মতো।

এই শীতে ফুটপাতে রাতযাপন করা বৃদ্ধ, নারী ও শিশুদের অনেক অসহায় ও মানবেতর জীবন-যাপন করতে হচ্ছে।

আশার কথা হলো সরকারি ও বেসরকারি বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান ও সংস্থা আর্থিকভাবে এবং শীতবস্ত্র দিয়ে সহায়তা করছে। তবে তা প্রয়োজনের তুলনায় নগন্য।

শেয়ার করুন আপনার পছন্দের সোশ্যাল মিডিয়ায়
error: Content is protected !!