হোম » সারাদেশ » সিরাজগঞ্জে গাদাগাদি করে দেয়া হচ্ছে কোমলমতি শিক্ষার্থীদের টিকা

সিরাজগঞ্জে গাদাগাদি করে দেয়া হচ্ছে কোমলমতি শিক্ষার্থীদের টিকা

হুমায়ুন কবির সুমন, সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি : সিরাজগঞ্জের তাড়াশ উপজেলায় শুরু হয়েছে কোমলমতি শিক্ষার্থীদের টিকাদান। তাড়াশ সদর ইউনিয়ন ভুমি অফিসে কার্যালয়ে দুটি বুথে টিকাদান শুরু হয়েছে গত ৮ জানুয়ারী। কিন্ত টিকাদানে স্বাস্থ্যবিধি উপেক্ষা আর ধীরগতির কারণে শিক্ষার্থীরা আক্রান্তের ঝুঁকিতে পড়ছে। শিক্ষার্থীদের দ্রুত সময়ের মধ্যে করোনার টিকার আওতায় আনতে গাদাগাদি করে দেয়া হচ্ছে কোমলমতি শিক্ষার্থীরা টিকা।

মঙ্গলবার (১১ জানুয়ারী) সকাল থেকে দেখা যায়, একই দিনে উপজেলার ৯টি বিদ্যালয়ের একদিনে ৩ হাজার ৪২ জন শিক্ষার্থীদের করোনা টিকা প্রয়োগের সময় নিধারিত করা হয়েছে। সেই কারণে মঙ্গলবার সকাল থেকে টিকাদানের জন্য সেখানে জড়ো হয়েছে শিক্ষার্থীরা। একই সময়ে বিশাল সংখ্যক শিক্ষার্থী জড়ো হওয়ায় শিক্ষার্থীদের বড় ধরণের ভীড় জমে যায়। শিক্ষার্থীদের সাথে অভিভাবকরা আসায় এই ভীড় আরো বাড়ে। বিশাল সংখ্যক শিক্ষার্থী একই সাথে জড়ো হওয়ায় স্বাস্থ্যবিধি মানার সুযোগ ছিলনা। অনেকটা গাঁদাগাদি করেই ছিল শিক্ষার্থীরা।

আবুল কালাম নামের এক অভিভাবক জানান, টিকা নিতে সপ্তম শ্রেণি পড়ুয়া তার ছেলে সকাল সাড়ে আটটায় বাসা থেকে বের হয়ে এসেছে। কিন্তু যে অবস্থা গাদাগাদির করে কোমলমতি শিক্ষার্থীরা লাইনে দাড়িয়ে রয়েছে ঘন্টার পর ঘন্টা। এতে করে শারিরিকভাবে ক্লান্ত হয়ে পড়ছে তারা। যদি স্কুলে স্কুলে গিয়ে শিক্ষার্থীদের টিকাদানের ব্যবস্থা করতো সবচেয়ে ভালো হতো। অভিভাবকদের দুর্ভোগে পড়তে হতো না, আর শিক্ষার্থীদেরও ঝুঁকিতে পড়তে হতো না।

অভিভাবকদের অভিযোগ, শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত (এসি) কক্ষ ও জেনারেটর সুবিধা ছাড়া এই টিকা প্রয়োগ করা যায় না। কিন্তু কোন নিয়মনীতি মানছে না কর্তৃপক্ষ। তাড়াশ উপজেলা স্বাস্থ্য ও প.প কর্মকর্তা ডাঃ মনোয়ার হোসেন জানান, শিক্ষার্থীদের ফাইজারের টিকা দেয়া হচ্ছে। ফাইজারের এ টিকা প্রয়োগে নিয়ম-নীতি আছে কিনা এ বিষয়ে তিনি বলেন, আমি অফিসে গিয়ে সামনা সামনি বসে কথা বলবো।

তাড়াশ উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার মো: ফকির জাকির হোসেন বলেন, গাদাঁগাদি হওয়াটা সম্ভব। কিন্তু এর দায়ভার হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের, আমার নয়। এছাড়া শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত (এসি) কক্ষ ও জেনারেটর সুবিধা ছাড়া এই টিকা প্রয়োগ করা যায় না। তারা যেভাবে দিচ্ছেন এ দায়ভার তাদের নিতে হবে।

শেয়ার করুন আপনার পছন্দের সোশ্যাল মিডিয়ায়
error: Content is protected !!