হোম » আজকের এই দিনে » আজ ১২ই নভেম্বর ভয়াল স্মৃতি ও আতঙ্কের দিন

আজ ১২ই নভেম্বর ভয়াল স্মৃতি ও আতঙ্কের দিন

আওয়াজ অনলাইন : আজ সেই ভয়াল ১২ই নভেম্বর। ৪৮ বছর আগের সেই দিনের বেদনা বিধুর ইতিহাস আজও ভুলতে পারেনি। ১৯৭০ সালের এই দিনে সমগ্র উপকূল জুড়ে বয়ে যায় মহা প্রলয়ংকরী ঘূর্ণিঝড় ও জলোচ্ছ্বাস। ১০ নম্বর মহাবিপদ সংকেত বুঝতে না পারার খেসারত দিতে হয়েছে উপকুলের ১০ লক্ষাধিক নিরক্ষর মানুষের প্রাণ বিসর্জনের মধ্য দিয়ে। ভেসে যায় গবাদি পশু, হাঁস-মুরগী আর ক্ষতিগ্রস্ত হয় মাঠ ফসল এবং অসংখ্য গাছপালা, পশু-পাখি। পুরো উপকূল মুহুর্তেই ধ্বংসজজ্ঞে পরিণত হয়। চারদিক ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকে লাশ আর লাশ। বাতাসে লাশের গন্ধ আর স্বজনদের আহাজারিতে ভারী হয়ে ওঠে এলাকার আকাশ বাতাস। ভোলা, পটুয়াখালী, বরগুনা, নোয়াখালী ও চট্টগ্রামের উপর দিয়ে বয়ে যায় এই ঘূর্ণিঝড় ও জলোচ্ছ্বাস গোর্কী।

প্রাকৃতিক দুর্যোগে এত প্রাণহানির ঘটনা এ দেশে আর কখনো ঘটেনি। সেই দিনের ভয়াবহ দুর্যোগের কথা মনে পড়লে আজো উপকূলীয় এলাকার মানুষের মন ও পরিবেশ ভারী হয়ে ওঠে। প্রায় পাঁচ দশক আগের স্মৃতি এখনো যেন তাদের চোখের সামনে ভাসছে। এলাকা ভারী হয়ে ওঠে স্বজনহারানো মানুষের বেদনায়। প্রতি বছরের এই দিনে উপকূলীয় এলাকার মানুষ সেই হারিয়ে যাওয়া লোকজন আর ভয়াল স্মৃতি স্মরণ করে থাকেন।

উপকূল দিবস উপলক্ষে ১২ নভেম্বর বেলা সাড়ে ১১টায় ঢাকায় জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে মানকবন্ধন অনুষ্ঠিত হবে। একই সময়ে উপকূলের ৬০ স্থানে মানববন্ধন, র্যালি ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হবে।

মানুষের জানমাল রক্ষার জন্য মাটির কেল্লা সংস্কার করা দরকার এবং আরো নতুন মাটির কেল্লা নির্মাণ করা গেলে দুর্যোগকালে জীবনের ঝুঁকি কমে আসবে। জলবায়ু পরির্বতনের ফলে জলোচ্ছ্বাস আঘাত হানার আতঙ্ক বেড়ে গেছে কলাপাড়া উপজেলার সাড়ে ৪ লাখ মানুষের মধ্যে। এ অবস্থায় উপকূলীয়বাসীদের নিরাপদে রাখতে সরকারের প্রতি সব রকম প্রস্তুতির ব্যবস্থার দাবি জানিয়েছেন উপকূলবাসী।
/এইচ.

শেয়ার করুন আপনার পছন্দের সোশ্যাল মিডিয়ায়
error: Content is protected !!