সংসদে পুরুষদের পক্ষে কথা বলার এমপি নেই’

আওয়াজ অনলাইনঃ পুরুষ বিষয়ক মন্ত্রণালয় ও বিবাহ রেজিষ্ট্রেশন পদ্ধতি ডিজিটালাইজেশন বাস্তবায়নের দাবিতে শনিবার (২৭ ফেব্রুয়ারী) বেলা ১১টায় জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে বাংলাদেশ পুরুষ অধিকার ফাউন্ডেশন ঢাকা মহানগরের আয়োজনে মানববন্ধন ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে।

প্রধান অতিথি বাংলাদেশ পুরুষ অধিকার ফাউন্ডেশনের মহাসচিব মোঃ ফররুখ শাহজাদ শুভ বলেন, তথ্য গোপন করে বহুবিবাহ ঠেকাতে বিবাহ রেজিষ্ট্রেশন পদ্ধতি ডিজিটাল করা জরুরি হয়ে পড়েছে। ডিজিটাল সিস্টেম থাকলে সবাই জানবে কে বিবাহিত আর কে অবিবাহিত! তালাকপ্রাপ্ত হলেও জানা সহজ হবে। এতে তথ্য গোপন করে বহুবিবাহ প্রতারণা হ্রাস পাবে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী যেমন দেশের মেয়েদের মা, তেমনি তিনি ছেলেদের ও মা। তিনি নিশ্চয়ই ছেলেদের কথা বিবেচনা করবেন।

অভিনেতা রাসেল মিয়া বলেন, বহুবিবাহ একটি ঘটনা নিয়ে সম্প্রতি দেশ-বিদেশে ব্যাপক সমালোচনা চলছে। পুরুষ বিষয়ক মন্ত্রণালয় হলে পুরুষের সত্যিকারের পুরুষত্ব ফিরবে বলে আমরা মনে করি।
পুরুষ অধিকার ফাউন্ডেশনের ঢাকা মহানগর সদস্য সচিব মোঃ মাজেদ ইবনে আজাদ বলেন, ঘরে ঘরে পুরুষ নির্যাতন হয়, কিন্তু প্রকাশ পায় না! পুরুষেরা আত্মসম্মান রক্ষা করতে গিয়ে লজ্জাবন্দি হয়ে প্রতিকারের পথও খোঁজেনা।

পুরুষ অধিকার মিডিয়া মুখপাত্র নজরুল ইসলাম দয়া বলেন, মহামান্য রাষ্ট্রপতি এবং মাননীয় প্রধানমন্ত্রী নিজেরাও পুরুষ বিষয়ক মন্ত্রণালয় দাবির পক্ষে আছেন বলেছেন। অথচ মহান জাতীয় সংসদে পুরুষের পক্ষে কোনো এমপির মুখে আওয়াজ শুনিনা। সবগুলো সংসদ সদস্য কি নারী বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের? প্রশ্নের উত্তর আছে? পুরুষ বিষয়ক মন্ত্রণালয় হলেই ঘরের টর্চার সেল থেকে নির্যাতিত পুরুষরা মুক্তি পাবে। তাই পুরুষদের এমপি মহোদয়রা সংসদে আওয়াজ তুলবেন বলে প্রত্যাশা করি।

মিউজিশিয়ান সুমন চৌধুরী রানা বলেন, মিথ্যা মামলা বন্ধ হোক, নারী আইনের সংশোধন জরুরি। প্রতিকারের পথ দেখাতে পারে পুরুষ বিষয়ক মন্ত্রণালয়।

মানববন্ধন ও সমাবেশে বক্তব্য রাখেন- পুরুষ অধিকার ফাউন্ডেশনের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক সাইফুল ইসলাম নাদিম, প্রচার সম্পাদক আব্দুল রাজ্জাক খান, সংগঠনের আইন উপদেষ্টা এ্যাড. কাউসার হোসেন, আইনজীবী সুপ্রীম কোর্ট ও এ্যাড. তানভির আহমেদ, এ ছাড়াও সিনিয়র যুগ্ম আহবায়ক লেহাজ উদ্দিন সরকার, যুগ্ম আহবায়ক লিটন গাজী, পুরুষ অধিকার নেতা কামরুল হাসান শেখ, আজিজুল হক রাজু, ইয়াসিন, মোহাম্মদ হোসাইন, রবিউল করিম রাজিব, খালেদুজ্জামান ফারসিন, অধ্যাপক সোলায়মান চৌধুরী সুজন, এনায়েত হোসেন লীন, ফাহিম আহমেদ, লাইছুজ্জামান স্বপন, ডা. মহিউদ্দিন সহ কেন্দ্রীয় ও মহানগর নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।