বগুড়ার নন্দীগ্রামে আলু’র বাম্পার  ফলনে কৃষকের মুখে হাসি

এম.এ রাশেদ,বগুড়া জেলা প্রতিনিধিঃ  আলু উৎপাদনের শীর্ষে বগুড়ার নন্দীগ্রামে এবছর ব্যাপক হারে আলু চাষ হয়েছে। মাঠে মাঠে এখন আলু উত্তোলনে ব্যস্ত সময় পার করছে কৃষাণ-কৃষাণীরা। বাঙ্গালীর সহজ লভ্য সবজি হিসেবে আলু’র ব্যাপক চাহিদা রয়েছে।
নন্দীগ্রাম উপজেলা কৃষি অফিসের তথ্যমতে জানা যায়, এবছর নন্দীগ্রাম উপজেলার ৫টি ইউনিয়ন ও ১টি পৌরসভায় মোট ৩হাজার ৪শ ৮০ হেক্টর জমিতে আলু চাষ হয়েছে। যার উৎপাদন লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে ৪হাজার ৫শ মেট্রিকটন। সরোজমিনে গিয়ে দেখা যায়, নন্দীগ্রাম পৌর এলাকার নামুইট জিয়ানগর মাঠে আলু উত্তোলনে ব্যস্ত সময় পার করছে আলু চাষীরা। নামুইট গ্রামের কৃষক আলহাজ্ব আফজাল হোসেন তার ৩০বিঘা জমিতে বিভিন্ন জাতের আলু চাষ করেছে। তার সাথে কথা বললে তিনি বলেন,
এবছর আলু’র ফলন ভাল এবং দামও বেশ ভাল। আমার প্রতিবিধা জমিতে জাত ভেদে ৭০-৮০মণ করে আলু’র উৎপাদন হয়েছে, যা বাজারে ৭০০-৮০০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে। একই গ্রামের কৃষক আঃ রাজ্জাক তার ৭ বিঘা জমিতে এ্যারেস্টিক জাতের আলুর চাষ করেছে। তিনি বলেন, প্রতি বিঘা জমিতে ৬০-৭০ মণ হারে আলু’র ফলন হয়েছে। অপরদিকে আলু চাষী আফসার আলী তার ৪বিধা জমিতে ডায়মন্ড জাতের আলু চাষ করেছে যার ফলন বিঘা প্রতি ১০০-১২০ মণ।
১নং বুড়ইল ইউনিয়নের সিংড়া খালাস গ্রামের আঃ মজিদ তার ৮ বিঘা জমিতে দেশীয় পাকড়ী জাতের আলু চাষ করেছে। তিনি বলেন আলু’র ফলন ভাল এবং ভাল দাম পাচ্ছি। এবিষয়ে নন্দীগ্রাম উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা আদনান বাবুর সাথে কথা বললে তিনি বলেন, নন্দীগ্রামের মাটি আলু চাষের জন্য অত্যন্ত উপযোগী। তাই কৃষকরা আলু চাষে ঝুঁকে পড়েছে। আমরা উপজেলা কৃষি অফিস থেকে প্রতিনিয়ত আলু চাষীদের ভাল ফলনের জন্য বিভিন্ন ধরনের পরামর্শ ও দিক নির্দেশনা প্রদান করেছি এবং প্রয়োজনীয় বালাইনাশক ব্যবহারের পরামর্শ প্রদান করেছি। যার ফলে এবছর আলু ফলন ভাল এবং বাজারে দাম ভাল থাকায় কৃষক লাভবান হচ্ছে।