Oops! It appears that you have disabled your Javascript. In order for you to see this page as it is meant to appear, we ask that you please re-enable your Javascript!
Home » সংবাদ শিরোনাম » উল্লাপাড়ায় ঝুকিপূর্ণভাবে নদী পারাপার: প্রশাসনের দৃষ্টি আকর্ষন
উল্লাপাড়ায় ঝুকিপূর্ণভাবে নদী পারাপার: প্রশাসনের দৃষ্টি আকর্ষন

উল্লাপাড়ায় ঝুকিপূর্ণভাবে নদী পারাপার: প্রশাসনের দৃষ্টি আকর্ষন

এম হিরন প্রধান : বাচাও নদী- গড়ো দেশ, শান্তি সুখের বাংলাদেশ।
সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়ার বড়হর করতোয়া নদীতে নির্মীয়মান সড়ক সেতুর পাশে ব্যাপক পরিমান কচুরিপানা জমা হয়ে পানির উপরে পুরো স্তরে পরিণত হয়েছে। ফলে বেশ কয়েকদিন ধরে স্থানীয়রা কচুরিপানার উপর দিয়ে ঝুঁকি নিয়ে নদী পারাপার হচ্ছেন। কচুরিপানায় পরিপূর্ণ এই স্থানের অনতি দুরে বড়হর মূল খেয়াঘাট। স্থানীয় লোকজন মূল খেয়াঘাটে না গিয়ে ঝুঁকি নিয়ে এপার ওপার চলাচল করেন।

বেশ কিছুদিন হলো এখানে ব্যাপক পরিমান কচুরিপানা জমে যাওয়ায় ব্যক্তিগত মালিকানায় চলাচলকারী নৌকা বন্ধ হয়ে গেছে। আর এ কারণে স্থানীয় লোকজন এখন রীতিমতো ঝুঁকি নিয়ে কচুরিপানার স্তরের উপর দিয়েই পারাপার হচ্ছেন। ঈদ উপলক্ষে কচুরিপানা পূর্ণ নদীর এই স্থানটি এখন দর্শনীয় স্থানেও পরিণিত হয়েছে।

ক’দিন ধরে দুরবর্তী লোকজনও এখানে এসে কৌতুহল বশতঃ এই কচুরিপানা স্তরের উপর দিয়ে নদী পারাপার হচ্ছেন। কয়েকদিন ধরে বিকেল বেলা পাশ্ববর্তী গ্রামের যুবকেরা কচুরিপানার স্তরের উপর ফুটবলও খেলছেন। নদীর পারে দাঁড়িয়ে অনেক মানুষ এ দৃশ্য উপভোগ করছেন। জানা যায় বর্তমানে নদীর এই স্থানের গভীরতা প্রায় ২০/২৫ ফুট।

স্থানীয়রা জানান, সড়ক সেতু নির্মাণের কারণে মূলতঃ কচুরিপানাগুলো নদীতে ভেসে যেতে বাঁধাগ্রস্থ হয়ে এক জায়গায় জমে গেছে। ফলে এখানে কচুরির মোটা স্তর পরে পারাপারের রাস্তা তৈরি হয়েছে। কিন্তু এখানে নদীর গভীরতা অনেক বেশি থাকায় সাধারণ লোকজনের কচুরিপানার উপর দিয়ে পারাপার যথেষ্ট ঝুঁকিপূর্ণ।

শুধু মানুষ নয়, এ স্তরের উপর দিয়ে সাইকেল, মোটর সাইকেল নিয়ে চলাচল করছে লোকজন। যে কোন সময় কচুরি স্তরের মধ্যে লোকজন ঢুকে গিয়ে বা মোটর সাইকেলসহ নদীতে ডুবে বড়ধরনের দুর্ঘটনা ঘটে যেতে পারে বলে এলাকাবাসী আশঙ্কা করছেন।

সংশ্লিষ্ট বড়হর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানের সঙ্গে যোগাযোগ করলে তিনি বলেন, করতোয়া নদীতে কচুরিপানার উপর দিয়ে লোকজনের চলাচলের করছে। এভাবে ঝুঁকি নিয়ে চলাচলে লোকজনকে বাঁধা দিলেও কেউ তা মানছেন না। এখন প্রতিদিনিই চলাচলকারী লোকজনের সংখ্যা বাড়ছে। স্থানীয় ছেলেরা এর উপর বল খেলছে।

সিরাজগঞ্জ ও উল্লাপাড়া উপজেলা কর্মকর্তার প্রতি এলাকাবাসী জোর দাবি দ্রুত এই অবস্থার প্রতিকার করে, স্থানীয় মানুষজনকে এ ঝুঁকি থেকে রক্ষা করা হোক।

লাইক ও শেয়ার করুন:
BIGTheme.net • Free Website Templates - Downlaod Full Themes
Scroll Up
Social media & sharing icons powered by UltimatelySocial
error: Content is protected !!