JavaScript must be enabled in order for you to see "WP Copy Data Protect" effect. However, it seems JavaScript is either disabled or not supported by your browser. To see full result of "WP Copy Data Protector", enable JavaScript by changing your browser options, then try again.
সংবাদ শিরোনাম:

ত্রিপুরার পার্বতী কন্যা অজন্তা দেববর্মার ঢাকায় সংবর্ধনা

নিজস্ব প্রতিবেদক : ১৯৭১ সালে বাংলাদেশের মহান মুক্তিযুদ্ধে আগরতলা যেভাবে বাংলাদেশকে সহায়তা করছে সেই ঋণ কোনওভাবেই পরিশোধ হবে না। মহান মুক্তিযুদ্ধে আগরতলার মানুষ আমাদের শুধুমাত্র আশ্রয়ই দেননি। তারা আমাদের যুদ্ধের কলাকৌশলও শিখিয়ে দিয়েছিলেন। যার ফলে খুব স্বল্প সময়ে বাংলাদেশ স্বাধীন হয়েছিল। তবে আগরতলার সঙ্গে বাংলাদেশের এখন সুসম্পর্ক রয়েছে। ভবিষ্যতে এ সম্পর্ক আরও গভীর হবে।

২৫ জানুয়ারি শুক্রবার রাজধানীর সেগুনবাগিচায় বাগিচা রেস্টুরেন্টে ‘অজন্তা দেববর্মন ফ্যান ক্লাব ঢাকার’ উদ্যোগে আয়োজিত ত্রিপুরার পার্বতী কন্যা অজন্তা দেববর্মনের সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে বক্তারা এসব কথা বলেন।

জয়যাত্রা ডটকম সম্পাদক ও অজন্তা দেববর্মন ফ্যান ক্লাব ঢাকার সভাপতি তোফাজ্জল হোসেনের সভাপতিত্বে সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের (বিএফইউজে) সভাপতি মোল্লা জালাল। অন্যদের মধ্যে জ্যেতি প্রকাশের প্রকাশক ও অজন্তা দেববর্মন ফ্যান ক্লাব ঢাকার সাধারণ সম্পাদক মোস্তফা জাহাঙ্গীর আলম, দৈনিক গনমানুষের আওয়াজ পত্রিকার সম্পাদক আইনুক হক, বাংলা টিভির ইনচার্জ (নিউজ) সুমন মোস্তাফিজ, বিশিষ্ট মুক্তিযোদ্ধ খায়রুল আলম বাদল, যুগশঙ্খের বাংলাদেশ প্রতিনিধি মৌসুম আকন্দ, ঢাকা রিপোটার্স ইউনিটির কল্যাণ সম্পাদক কাওছার আজম প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

এ সময় মোল্লা জালাল বলেন, পার্বতী কন্যা আমাদের মহান মুক্তিযুদ্ধের অবদান ভুলে যাবার নয়। ধীর্ঘ ৪৭ বছর পর আবার আমারে মহান মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতি ধরে রাখতে উদ্যোগ নিয়েছেন। আমাদের মুক্তিযুদ্ধের ওপর ফিল্ম তৈরি করছেন। এটি বিরাট ব্যাপার। আগরতলার ঋণ শোধযোগ্য নয়। আমার জানা ছিল না অজন্তার এতো ভক্ত বাংলাদেশে। জেনে ভালো লাগল। উনার মতো গুনীজনকে সম্মাননা জানাতে পেরে ভালো লাগছে। বাংলাদেশের প্রতি হৃদয়ের টানের প্রতি সম্মান জানিয়ে মোল্লা জালাল আরও বলেন, বাংলাদেশের পক্ষ থেকে আপনার কর্মের জন্য যে কোনও ধরণের সহায়তা আমাদের পাশে পাবেন।

অজন্তা দেববর্মন বলেন, আমার মতো ছোট মানুষকে সম্মানিত করায় আমি খুবই খুশি। আমি যখন তৃতীয় শ্রেনীর শিক্ষার্থী ছিলাম তখন বাংলাদেশের মুক্তিযোদ্ধা াাদের আপ্যায়ন করেছি। তখন থেকেই বাংলাদেশের প্রতি টান তৈরি হয়। এরপর থেকে বাংলাদেশে আসার উদ্যোগ নিই। কিন্তু ধীর্ঘ দিনে হয়ে ওঠেনি। তবে বন্ধুরে টানে বাংলাদেশে চলে এসেছি। এখানে আমাকে যেভাবে সম্মাননা জানাল আমার বন্ধুরা আমি খুবই অভিভুত। বিশেষ করে তোফাজ্জল হোসেন, আবু আলী, কাওছার আজম, সুমন অর্নব, বাদল দাসহ অনেকের নিমন্ত্রণে বাংলাদেশে এসেছি।

দৈনিক গনমানুষের আওয়াজ পত্রিকার সম্পাদক আইনুক হক, যারা বাংলাদেশের পাশে ছিল, আছে এবং থাকবে আমারাও তাদের পাশে আছি। দুই দেশের মধ্যে পারস্পারিক সহায়তার মাধ্যমে আমারে সম্পর্ক আরও শক্তিশালী করতে হবে।

জ্যেতি প্রকাশের প্রকাশক ও অজন্তা দেববর্মন ফ্যান ক্লাব ঢাকার সাধারণ সম্পাদক মোস্তফা জাহাঙ্গীর আলম বলেন, এ ধরণের গুনীজনকে সম্মাননতা দিতে পেরে নিজেকে গর্বিত মনে করছিল।

সভাপতির বক্তব্যে তোফাজ্জল হোসেন বলেন, অজন্তার মতো একজন গুণী মানুষের সঙ্গে পরিচিত হতে পেরে নিজেদে ধন্য মনে করছি। তবে ছোট পরিসরে আমরা আয়োজন করেছি। ভবিষ্যতে আরও বড় করে সম্মাননার আয়োজন করা হবে বলেও জানান তিনি।

বক্তব্য শেষে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের মধ্যদিয়ে সংবর্ধনা অনুষ্ঠান শেষ হয়।

সংবাদ পড়ুন, লাইক দিন এবং শেয়ার করুন

Comments

comments

About গণমানুষের আওয়াজ.কম

x

Check Also

ভৈরবে থামছেই না ড্রেজারে বালু উত্তোলন হুমকির মুখে পরিবেশ ও কৃষি জমি

এম আর ওয়াসিম, ভৈরব (কিশোরগঞ্জ) প্রতিনিধি :  ভৈরবে শুধু মাত্র বিপননের উদ্দ্যেশ্যে  প্রভাবশালী মহলের হাতেগুনা ...

error: Content is protected !!