JavaScript must be enabled in order for you to see "WP Copy Data Protect" effect. However, it seems JavaScript is either disabled or not supported by your browser. To see full result of "WP Copy Data Protector", enable JavaScript by changing your browser options, then try again.
সংবাদ শিরোনাম:

“প্রতিমন্ত্রী থেকে পূর্ণমন্ত্রী হলেন বীর বাহাদুর”

রাহুল দাশ-বান্দরবান প্রতিনিধি:  একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ৩০০নং আসনে আওয়ামীলীগ থেকে নৌকা মার্কায় বিপুল ভোটে জয়লাভকারী পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং এমপি এবার পূর্ণমন্ত্রী হলেন।
জয়ী হবার পর থেকেই বান্দরবানের সর্বস্তরের মানুষ এই বীরকে আবারো দেশ ও জনগণের সেবার জন্য ৩০০ নং আসন থেকে পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের পূর্ণমন্ত্রী হিসেবে দেখার ইচ্ছা প্রকাশ করে।বান্দরবান জেলার ৭টি উপজেলাসহ যোগাযোগ ব্যবস্থার ব্যাপক উন্নয়ন,এলাকার শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানসহ সকল সম্প্রদায়ের ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান নির্মাণ এবং শান্তি-শৃংখলা বজায় রাখতে সক্ষম হওয়া সহ উন্নয়ন কর্মকান্ডের মাধ্যমে তিন পার্বত্য জেলাকে আধুনিক ও উন্নত মানের জেলায় রুপান্তর করার কারনে এমন দাবী জানান স্থানীয়রা।তাদের এই ইচ্ছাটা যেন  রাত পোহাতেই পূরণ হয়ে গেলো।
সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে,আওয়ামীলীগ সরকারের নতুন মন্ত্রী সভায় শপথ নেওয়ার জন্য গতকাল রোববার বঙ্গ ভবন থেকে বহুল প্রতিক্ষিত ফোন পেলেন বীর বাহাদুর এমপি।অর্থাৎ পূর্ণ মন্ত্রীত্তের আসনে বসার ডাক পেলেন বীর বাহাদুর উশৈসিং এমপি।আজ সোমবার তিনি নতুন সরকারের অন্য মন্ত্রীদের মতো বঙ্গভবনে শপথ গ্রহন করবেন।
একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী সাচিং প্রু জেরীকে ৮৫ হাজার ২শত ৪৭ ভোটে পরাজিত করে বান্দরবান ৩০০ নং আসনে থেকে ৬ষ্ঠ বারের মত সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয় বীর বাহাদুর উশৈসিং। গত ৩০শে ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত নির্বাচনে বীর বাহাদুর উশৈসিং মোট ভোট পেয়েছেন ১ লাখ ৪৩ হাজার ৯শত ৬৬ ভোট। অন্যদিকে বিএনপি সমর্থিত সাচিং প্রু জেরী মোট ভোট পেয়েছেন ৫৮ হাজার ৭শত ১৯ ভোট। এর পর পরই একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিপুল ভোটে বান্দরবানের সংসদ সদস্য হিসেবে নির্বাচিত হয়েছেন বীর বাহাদুর উশৈসিং।এই জয় যেন বান্দরবানবাসীর প্রতিটি মানুষের জয়।
উল্লেখ্য যে,বীর বাহাদুর ২০০২ সালে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক এবং জাতীয় সংসদের আওয়ামী লীগের সংসদীয় দলের হুইপ নির্বাচিত হন।১৯৮৯ সালে বান্দরবান পার্বত্য জেলা স্থানীয় সরকার পরিষদের সদস্য নির্বাচিত হন। ১৯৯৭ সালের ২ ডিসেম্বর ঐতিহাসিক শান্তি চুক্তির পূর্বে এ সংক্রান্ত সংলাপ কমিটির অন্যতম সদস্য এবং তৎকালীন সরকারের বেসামরিক বিমান ও পর্যটন মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি হিসেবে, ১৯৯৮ সালে উপমন্ত্রীর পদমর্যাদায় প্রথমবারের মত এবং ২০০৮ সালে প্রতিমন্ত্রীর পদমর্যাদায় দ্বিতীয় বারের মত পার্বত্য চট্টগ্রামে উন্নয়ন বোর্ড, রাঙ্গামাটি-এর চেয়ারম্যানের দায়িত্ব পালন করেন।২০১৪ সালের ১২ জানুয়ারি থেকে পার্বত্য প্রতিমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন।
সর্বোপরি টানা ষষ্ঠবারের মতো সংসদ সদস্যের মুকুটধারণ করে আছেন এই মন্ত্রী।
সংবাদ পড়ুন, লাইক দিন এবং শেয়ার করুন

Comments

comments

About গণমানুষের আওয়াজ.কম

x

Check Also

লোহাগাড়া ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে শীতার্থ মানুষের মাঝে কম্বল বিতরণ

আবদুল করিম,লোহাগাড়াঃ মানবতার কল্যাণে নিয়োজিত থাকার অন্যতম সংগঠন লোহাগাড়া ফাউন্ডেশন চট্টগ্রাম এর পক্ষ থেকে (১৯ ...

error: Content is protected !!