JavaScript must be enabled in order for you to see "WP Copy Data Protect" effect. However, it seems JavaScript is either disabled or not supported by your browser. To see full result of "WP Copy Data Protector", enable JavaScript by changing your browser options, then try again.
সংবাদ শিরোনাম:

অ্যাডভোকেট সাহারা খাতুনকে আবারও মন্ত্রিসভায় চায় এলাকাবাসী

এম হিরন প্রধান : রাজধানীর গুরুত্বপূর্ণ আসন হিসেবে বিবেচিত ঢাকা-১৮’ আসনটি। রাজধানীর উত্তরা পূর্ব ও পশ্চিম, তুরাগ, বিমানবন্দর, খিলক্ষেত, উত্তরখান, দক্ষিণখান ভাটারা থানার (আংশিক) এলাকা নিয়ে ঢাকা-১৮ আসন। ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের ১ ও ১৭ নম্বর ওয়ার্ডের পাশাপাশি হরিরামপুর, উত্তরখান, দক্ষিণখান ও ডুমনি ইউনিয়নভুক্ত এলাকা এই আসনে পড়েছে।

আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য সাবেক মন্ত্রী অ্যাডভোকেট সাহারা খাতুন। নবম ও দশম জাতীয় সংসদে নৌকা নিয়ে তিনিই এমপি নির্বাচিত হয়েছিলেন। এবারও একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নৌকা প্রতীক নিয়ে বিজয়ী হয়েছেন অ্যাডভোকেট সাহারা খাতুন। তিনি পেয়েছেন ৩,০২,০০৬ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী শহীদ উদ্দিন মাহমুদ পেয়েছেন ৭১,৭৯২ ভোট।

বিগত তত্ত্বাবধায়ক সরকারের আমলে বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আইনজীবী হিসেবে সবার নজর কাড়া সাহারা খাতুন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনেও বিপুল ভোটের ব্যবধানে জয় লাভ করেছেন। ফলে টানা তৃতীয়বারের মত সংসদ সদস্য হন প্রবীণ এই রাজনীতিবিদ।

সীমানা পুনর্বিন্যাসের পর ২০০৮ সালে নির্বাচনে এখানে আওয়ামী লীগ প্রার্থী অ্যাডভোকেট সাহারা খাতুন বিএনপির আজিজুল বারী হেলালকে হারিয়ে প্রথমবার এমপি নির্বাচিত হন।

২০১৪ সালের বিএনপিবিহীন নির্বাচনে বিএনএফ প্রার্থী আতিকুর রহমান নাজিমকে হারিয়ে টানা দ্বিতীয় দফায় এমপি হন তিনি। মহাজোট সরকারের প্রথম মেয়াদে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মতো গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব পান সাহারা। পরে তাকে ডাক ও টেলিযোগাযোগমন্ত্রী করা হয়।

দীর্ঘ ১৭ বছরের রাজনৈতিক ক্যারিয়ার সাহারা খাতুনের। তবে রাজনৈতিক কর্মী হিসেবে তার বিরুদ্ধে নেই তেমন কোনো সমালোচনা। পদোন্নতি পেয়ে একপর্যায়ে আওয়ামী লীগের সর্বোচ্চ ফোরাম সভাপতিমণ্ডলীতেও স্থান পেয়েছেন তিনি।

টানা তিন দফায় দলের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য হিসেবে দায়িত্ব পালন করা বর্ষীয়ান এই আওয়ামী লীগ নেতা দলের আইনবিষয়ক সম্পাদক, সহযোগী সংগঠন আওয়ামী আইনজীবী পরিষদের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি এবং মহিলা পরিষদের সাধারণ সম্পাদকও ছিলেন।

গত বছর আওয়ামী আইনজীবী পরিষদ ও বঙ্গবন্ধু আইনজীবী পরিষদকে একীভূত করে ‘বঙ্গবন্ধু আওয়ামী আইনজীবী পরিষদ’ প্রতিষ্ঠাকালে তাকে নতুন এই সংগঠনের জ্যেষ্ঠ যুগ্ম আহ্বায়ক করা হয়েছে। আন্তর্জাতিক মহিলা আইনজীবী সমিতি ও আন্তর্জাতিক মহিলা জোটের সদস্য হিসেবেও দায়িত্ব পালন করছেন সুপ্রিম কোর্টের এই আইনজীবী।

ত্যাগী নেত্রী সাহারা খাতুনকে এবার ফের মন্ত্রী হিসেবে দেখতে চায় এলাকাবাসী। বিভিন্ন শ্রেণি পেশার মানুষের কাছ থেকে এদাবি উঠেছে। একজন পরিচ্ছন্ন রাজনীতিবিদ ও নীতি আদর্শের প্রতীক সাহারা খাতুন গত ১০ বছরে ব্যাপক উন্নয়ন করেছেন।

সজ্জন ব্যক্তি হিসেবেও তার গ্রহণযোগ্যতা রয়েছে। এছাড়া তিনি স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী থাকাকালীন দেশের আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি ভালো ছিল। সে সময় দেশে কোনো জঙ্গির উত্থান ঘটেনি। এর জন্য সংসদেও তার প্রশংসা করেন একাধিক সাংসদরা।

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে টানা তৃতীয়বারের মত সাহারা খাতুন বিপুল ভোটে সাংসদ নির্বাচিত হওয়ায় ঢাকা-১৮ আসনের জনগণের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী কাছে সকলের জোর দাবি বর্ষীয়ান এই নারী রাজনীতিককে ফের মন্ত্রী পরিষদে অন্তর্ভূক্ত করা হয়। এলাকার এবং দেশের জন্য কাজ করার সুযোগ করে দেবে।

সংবাদ পড়ুন, লাইক দিন এবং শেয়ার করুন

Comments

comments

About আওয়াজ অনলাইন

x

Check Also

শ্যামনগর উপজেলা পরিষদ নির্বাচন- জনপ্রিয়তায় শীর্ষে  এ্যাড জহুরুল হায়দার বাবু

মারুফ বিল্লাহ রুবেল, শ্যামনগর সাতক্ষীরা প্রতিনিধিঃ উৎসবমুখর পরিবেশে সদ্য সমাপ্ত একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আমেজ ...

error: Content is protected !!