JavaScript must be enabled in order for you to see "WP Copy Data Protect" effect. However, it seems JavaScript is either disabled or not supported by your browser. To see full result of "WP Copy Data Protector", enable JavaScript by changing your browser options, then try again.
সংবাদ শিরোনাম:

আখাউড়া-আগরতলা রেললাইন নির্মান কাজের উদ্বোধন ১০ সেপ্টেম্বর

মোঃ মোজাম্মেল ভূঁইয়া, আখাউড়া (ব্রাহ্মণবাড়িয়া) প্রতিনিধিঃ-  আখাউড়া-আগরতলা রেললাইন প্রকল্পের বাংলাদেশ অংশের কাজের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন হতে যাচ্ছে আগামী ১০ সেপ্টেম্বর সোমবার। বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে কাজের উদ্বোধন করার কথা রয়েছে।
ভিডিও কনফারেন্স উপলক্ষে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়া রেলওয়ে জংশন স্টেশনে এক সুধী সমাবেশ আয়োজনেরও কথা রয়েছে। ওই সুধী সমাবেশে বাংলাদেশ সরকারের একাধিক মন্ত্রীও উপস্থিত থাকতে পারেন বলে আশা প্রকাশ করা হচ্ছে।
রেলপথ মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. মোফাজ্জেল হোসেন এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন। ভিডিও কনফারেন্স উপলক্ষে সাইট পরিদর্শন করতে গত ১ সেপ্টেম্বর আখাউড়ায় এসে তিনি সাংবাদিকদেরকে এসব তথ্য জানান। আখাউড়া-আগরতলা রেললাইন প্রকল্পটি নির্মাণ হলে দুই দেশের মধ্যে সম্পর্ক আরো জোরদার হবে বলে আশা করা হচ্ছে। প্রথমদিকে পণ্যবাহী ট্রেন চলাচল করতে পারে বলে সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে কথা বলে ধারণা পাওয়া গেছে।
২০১৬ সালের ৩১ জুলাই একই প্রকল্পের ভারতের আগরতলা অংশে কাজের উদ্বোধন করেন বাংলাদেশের রেলপথ মন্ত্রী মো. মুজিবুল হক, ভারতের রেলপথ মন্ত্রী সুরেশ প্রভাকর প্রভু। ইতিমধ্যেই ভারতের অংশে রেলপথ নির্মাণের কাজ অনেক দূর এগিয়েছে।  এদিকে বাংলাদেশের অংশে ৫৬.৩৬ এক জমি অধিগ্রহন প্রক্রিয়া শেষে রেলওয়ে কর্তৃপক্ষের কাছে হস্তান্তরও করা হয়েছে বলে গতকাল সোমবার জানিয়েছেন আখাউড়ার সহকারি কমিশনার (ভূমি) জেসমিন সুলতানা। জুন মাসে অধিগ্রহন ও হস্তান্তর প্রক্রিয়া সম্পন্ন হয় বলে জানিয়েছেন তিনি। আখাউড়া থেকে আগরতলার রেললাইনের দৈর্ঘ্য হবে মোট ১৫ কিলোমিটার। এর মধ্যে বাংলাদেশের অংশে ১০ কিলোমিটার ও ভারতের অংশে পাঁচ কিলোমিটার। আখাউড়া থেকে গঙ্গাসাগর রেলওয়ে স্টেশন হয়ে মনিয়ন্দ ইউনিয়নের শিবনগর পর্যন্ত হবে বাংলাদেশের রেললাইন। ওপারে নিশ্চিন্তপুর হয়ে রেললাইন যাবে আগরতলায়। রেললাইন নির্মাণে অধিকাংশ টাকাই ব্যয় করবে ভারত।
বিভিন্ন সূত্রে পাওয়া তথ্য মতে, এ প্রকল্পে মোট ব্যয় ধরা হয়েছে ৯৮০ কোটি রুপি। এর মধ্যে ভারতের পাঁচ কিলোমিটার অংশের জন্য ৫৮০ কোটি রুপি ও বাংলাদেশ অংশের ১০ কিলোমিটারের জন্য ৪০০ কোটি রুপি (৪৭৭ কোটি ৮১ লাখ টাকা)। রেললাইন নির্মাণে ভারত থেকে অনুদান হিসেবে পাওয়া গেছে ৪২০ কোটি ৭৫ লাখ টাকা। অবশিষ্ট ৫৭ কোটি টাকা বাংলাদেশের সরকারি কোষাগার থেকে ভূমি অধিগ্রহনসহ বিভিন্ন খাতে ব্যয় হচ্ছে।
আখাউড়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকতা (ইউএনও) মোহাম্মদ শামছুজ্জামান গত রবিবার জানান, আখাউড়া-আগরতলা রেললাইন প্রকল্পের বাংলাদেশ অংশের কাজ আগামী ১০ সেপ্টেম্বর উদ্বোধন হবে বলে জানিয়েছেন রেলপথ সচিব। দুই দেশের প্রধানমন্ত্রী ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে উদ্বোধন উপলক্ষে আখাউড়ায় একটি অনুষ্ঠানেরও আয়োজন করবে রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ।
সংবাদ পড়ুন, লাইক দিন এবং শেয়ার করুন

Comments

comments

About গণমানুষের আওয়াজ.কম

x

Check Also

জাতীয় প্রেসক্লাবের সভাপতি সাইফুল আলম, সম্পাদক ফরিদা ইয়াসমিন

আওয়াজ অনলাইন : জাতীয় প্রেসক্লাবের ব্যবস্থাপনা কমিটির নির্বাচনে সভাপতি নির্বাচিত হয়েছেন সাইফুল আলম। সাধারণ সম্পাদক ...

error: Content is protected !!