JavaScript must be enabled in order for you to see "WP Copy Data Protect" effect. However, it seems JavaScript is either disabled or not supported by your browser. To see full result of "WP Copy Data Protector", enable JavaScript by changing your browser options, then try again.
সংবাদ শিরোনাম:
সিদ্ধিরগঞ্জে পত্রিকা হকারকে মারধর করে টাকা ছিনিয়ে নেয়ার অভিযোগ পুলিশের বিরুদ্ধে

সিদ্ধিরগঞ্জে পত্রিকা হকারকে মারধর করে টাকা ছিনিয়ে নেয়ার অভিযোগ পুলিশের বিরুদ্ধে

মোঃ জাকির হোসেন, সিদ্ধিরগঞ্জ প্রতিনিধি:

ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের সিদ্ধিরগঞ্জের শিমরাইল মোড়ে শনিবার জেলা প্রশাসনের উচ্ছেদ অভিযানের সময় সিদ্ধিরগঞ্জ থানার এক এএসআই’র বিরুদ্ধে পত্রিকা হকারকে মারধর করে টাকা ছিনিয়ে নেয়ার অভিযোগ উঠেছে। টাকা নিয়ে চলে যাওয়ার পর খবর পেয়ে ওই পত্রিকা স্টলের মালিক এএসআই’র কাছে ছুটে গেলে তাকেও মারধর করেন এই এএসআই। প্রকাশ্য জনসম্মুখে এএসআই’র এমন মাস্তানীতে হতবাক হয়ে পড়েন উপস্থিত লোকজন। চরম ক্ষোভ দেখা দেয় তাদের মধ্যে। এক পর্যায়ে পরিস্থিতি বেগতিক দেখে এএসআই’র ছিনিয়ে নেয়া টাকার মধ্যে ৫০০ টাকা বের করে পত্রিকা স্টলের মালিকের হাতে দিয়ে দ্রুত সটকে পড়েন। গুণধর ওই এএসআই’র নাম মিজানুর রহমান। ঘটনাটি ঘটেছে শনিবার দুপুরে শিমরাইল ফুটওভার ব্রিজের নিচে। এ ঘটনায় চরম ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন স্থানীয় গণমাধ্যমকর্মীরা।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, সকাল থেকে শুরু হয় শিমরাইল মোড়ের দক্ষিণপার্শ্বের ফুটপাতে উচ্ছেদ অভিযান। বেলা ১টার দিকে সিদ্ধিরগঞ্জ থানার এএসআই মিজানুর রহমান ফুটওভার ব্রিজের নিচে দীর্ঘদিনের পুরনো পত্রিকার স্টলটি সরিয়ে নিতে বলে। এসময় দোকান কর্মচারী রফিক (১৫) বলে ‘স্যার’ আমি তো একা। এতগুলো পত্রিকা কিভাবে সরাবো। একটু সময় দেন সরিয়ে নিচ্ছি। এসময় এএসআই মিজানুর রহমান কর্মচারী রফিককে কয়েকটি চড়থাপ্পড় মেরে পত্রিকা স্টলে কয়েকটি লাথি মারে। এবং রফিকের পকেট থেকে জোর করে পত্রিকা বিক্রির সব টাকা নিয়ে যায়।

এদিকে উচ্ছেদের খবর পেয়ে পত্রিকা স্টলের মালিক মোতালেব মোল্লা (৪৮) ছুটে এসে বিষয়টি জানতে পারেন এএসআই’র মিজান তার কর্মচারী রফিককে মারধর করে পকেট থেকে সব টাকা নিয় গেছে। পরে মোতালেব অদুরের দাঁড়িয়ে থাকা এএসআই মিজানের সামনে যান এবং নিজের পরিচয় দিয়ে কথা বলার সঙ্গে সঙ্গে শত শত লোকজনের সামনে মোতালেবের চুলের মুঠি ধরে এএসআই বেধড়ক মারধর করেন। এসময় উপস্থিত লোকজনের মধ্যে ক্ষোভ ছড়িয়ে পড়ে। পরে পরিস্থিতি বেগতিক দেখে এএসআই মিজান ছিনিয়ে নেয়া টাকার মধ্যে ৫০০ টাকা মোতালেবের হাতে দিয়ে সটকে পড়েন।

আহত মোতালেব সাংবাদিকদের জানান, আমি দীর্ঘ ২০-২৫ বছর ধরে এখানে পত্রিকা বিক্রি করি। কখনো আরো সঙ্গে খারাপ ব্যবহার করিনি। আমি রোজা ছিলাম। শুধু জিজ্ঞেস করতে গিয়েছিলাম টাকা নিয়েছে কেন? এই জন্য আমাকে এভাবে মারলো। এ কথা বলেই কান্নায় ভেঙ্গে পড়েন মোতলেব।

Hits: 0

Comments

comments

About গণমানুষের আওয়াজ.কম

Scroll To Top
error: Content is protected !!