JavaScript must be enabled in order for you to see "WP Copy Data Protect" effect. However, it seems JavaScript is either disabled or not supported by your browser. To see full result of "WP Copy Data Protector", enable JavaScript by changing your browser options, then try again.
সংবাদ শিরোনাম:
Home / অপরাধ-দুর্নীতি / ধবংসের পথে যুবসমাজ- বদলগাছীর আনাচে কানাচে চলছে রমরমা মাদক ব্যবসা
ধবংসের পথে যুবসমাজ- বদলগাছীর আনাচে কানাচে চলছে রমরমা মাদক ব্যবসা

ধবংসের পথে যুবসমাজ- বদলগাছীর আনাচে কানাচে চলছে রমরমা মাদক ব্যবসা

   নওগাঁ বদলগাছী থেকে মোঃ আব্দুল কাদের :

নওগাঁর বদলগাছীতে আনাছে কানাছে জমে উঠেছে রমরমা মাদক ব্যবসা ধবংসের পথে ধাপিত হচ্ছে যুবসমাজ। হাট বাজার গ্রাম-গঞ্জ সহ সর্বত্রই হাত বাড়ালেই পাওয়া যাচ্ছে মাদক । মাদকের প্রাপ্তি সহজ লভ্য হওয়ায় যুব সমাজ সহ বিভিন্ন বয়সের লোকজন অধিক হারে নেশাগ্রস্থ হয়ে তাদের অজান্তেই ধ্বংসের পথে ধাবিত হচ্ছে বলে উপজেলার সচেতন মহলের একাধীক সুত্রে জানা গেছে। খোঁজ নিয়ে যানা যায় উপজেলা কিছু চিহ্নিত মহাজন মাদক ব্যবসায়ীরা ধামুইহাট উপজেলার পাগলা দেওয়ান, ফার্সিপাড়া এবং সাপাহার উপজেলার বস্তাবর, শিমলতলী সহ বিভিন্ন সীমান্ত এলাকা দিয়ে ভারত থেকে হিরোইন ফেন্সিডিল, গাঁজা, প্যাথেডিন সহ বিভিন্ন মাদকদ্রব্য বদলগাছী উপজেলার জাবারীপুর-গোবরচাঁপাহাট, সাগরপুর এবং মহাদেবপুর উপজেলার মাতাজীহাট হয়ে বদলগাছীতে এনে তাদের শেল্টারে রাখে। পরে তা গোবরচাঁপা, পাহাড়পুর, মিঠাপুর, ভান্ডারপুর, কোলা, দ্বীপগঞ্জ, বালুভরা, খলসী, কোমারপুর, কাদিবাড়ি, পারসোমবাড়ীহাট ও বদলগাছী সদর সহ গ্রামগঞ্জে খুচরা মাদক বিক্রেতাদের নিকট সরবরাহ করে থাকে।

পরে তা খুচরা মাদক বিক্রেতারা হাট-বাজার গ্রাম-গঞ্জে সহ বিভিন্ন বয়সী সেবনকারীদের কাছে বিক্রি করে। উপজেলার সাগরপুর গ্রামের মাদক সম্রাট মেহেদী হাসান (এসপি) কোলা ইউপির চকতাহের গ্রামের মজিদুল ইসলাম এর ছেলে ছাইদুল ইসলাম, তাছেরের ছেলে মিল্টন, আক্কেলপুর উপজেলার হাস্তাবসন্তপুর গ্রামের হাসানের ছেলে আলতাফ হোসেন, হিরোইন ব্যবসায় জড়িত তাদের বিরুদ্ধে থানায় একাধীক মামলা রয়েছে। বদলগাছী থানার পুলিশ ছোট খাট মাদক ব্যবসায়ী ও সেবনকারীকে আটক করে ভ্র্যামমান আদালতের ম্যাধমে ১৫দিন থেকে ৩মাসের সাজা প্রদান করে। তারা জেল থেকে এসে আবার শুরু করে মাদক ব্যাবস্যা। আর রহস্যজনক কারনে পুলিশের ধরা ছোয়ার বাহিরে থেকে যাচ্ছে বড় বড় মাদক ব্যবসায়ীরা। গত ৯ মে উপজেলা সদরে ছোট যমুনা নদীর চর থেকে ২ মাদক ব্যবসায়ী সহ ১৭ জন মাদকসেবীকে গ্রেপ্তার করে র‌্যাব। ঐদিন সন্ধ্যারাতে উপজেলা নির্বাহী কমিশনার মোঃ রওশন আলী (ভুমি) ভ্রাম্যমান আদালতে ২ ব্যবসায়ীর ২ বছর ও সেবনকারীদের বিভিন্ন মেয়াদে সাজা প্রদান করে । এলাকাবাসী জানায় সন্ধ্যার পর থেকেই দিন জমে উঠে মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্স ভবনের পাশে ও নদীর চরে নির্মিত কেন্দ্রীয় মন্দিরের পাশে মাদক ব্যবসায়ী ও মাদক সেবীদের আড্ডা। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে র‌্যাব সন্ধ্যালগ্নে দুই মাদক ব্যবসায়ী সহ ১৭ জন মাদকসেবীকে গ্রেপ্তার করে।

গ্রেপ্তার কৃতরা হল মাদক ব্যবসায়ী শহিদুল ইসলাম (৩৯) ও হেলাল (৩৮) সাজা ২ বছর। মনজুর (৫২) রনি কুমার (২৫), তিতাস (২৫), জাহিদ হাসান (২৫), নাজমুল শাকিব (২১), তাকদির হোসেন (২২), চপল (২২), তৌফিক হোসেন (২৩), নাইমুর রহমান (২১), চপল কুমার (২২), নূর ইসলাম (২৮), রাজু আহম্মেদ (৩৪) সহ ১৫ জন মাদক সেবীকে ভ্রাম্যমান আদালতে ৬ মাস করে সাজা প্রদান করা হয়। উপজেলার সচেতন মহল জানায় থানা পুলিশ মাঝে মধ্যে খুচরা মাদক বিক্রেতাদের আটক করে নিয়মিত মামলা সহ ভ্রাম্যমান আদালতে লঘু শাস্তির ব্যবস্থা করলেও মহাজন মাদক ব্যবসায়ীরা বরাবরই থেকে যাচ্ছে ধরা ছোঁয়ার বাহিরে।। ফলে মাদকের মরন ছোবলে যুবসমাজ আজ ধ্বংসের পথে ধাবিত হচ্ছে। এহেন পরিস্থিতিতে উপজেলার অভিভাবকেরা তাদের সন্তানদের নিয়ে হতাশ হয়ে পড়ছে। বদলগাছী থানার অফিসার ইনচার্জ জালাল উদ্দীন সঙ্গে কথা বললে তিনি জানান মাদক বিরোধী অভিযান অব্যাহত রয়েছে এবং অনেক মাদক বিক্রেতা ও সেবনকারীদের আটক করে আইনের আওতায় আনা হয়েছে এবং অভিযান অব্যাহত থাকবে।

Comments

comments

About গণমানুষের আওয়াজ.কম

Scroll To Top
error: Content is protected !!