JavaScript must be enabled in order for you to see "WP Copy Data Protect" effect. However, it seems JavaScript is either disabled or not supported by your browser. To see full result of "WP Copy Data Protector", enable JavaScript by changing your browser options, then try again.
সংবাদ শিরোনাম:
Home / শহর-নগর / পতিসরে নাগর নদে বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের স্মৃতি বর্ধনের প্রয়াস
পতিসরে নাগর নদে বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের স্মৃতি বর্ধনের প্রয়াস

পতিসরে নাগর নদে বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের স্মৃতি বর্ধনের প্রয়াস

    নওগাঁ থেকে জাহিদুল হক মিন্টু :

বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের স্মৃতিবিজড়িত নওগাঁর আত্রাইয়ের পতিসরে নাগর নদের পাড়ে একটি শান বাঁধানো ঘাট তৈরি করে কবির স্মৃতি বর্ধনে নতুন একটি মাত্রার সৃষ্টি করা হয়েছে। পতিসরের স্মৃতি বর্ধনে এ ঘাট কালের সাক্ষী হয়ে থাকবে বলে এলাকাবাসীর অভিমত ব্যক্ত করেছেন। আত্রাই উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোখলেছুর রহমান নিজস্ব পরিকল্পনায় ও স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যানের সহায়তায় এলজিএসপির অর্থায়নে এ ঘাট নির্মাণ করে কবির স্মৃতি বহালের প্রয়াস গ্রহণ করেন।

জানা গেছে, আত্রাইয়ের ঐতিহ্যবাহী গুড় নদীর বক্ষ চিড়ে উপজেলার খাসখামার, দর্শনগ্রাম, পতিসর, হাটসড়িয়া হয়ে বয়ে গেছে কবির স্মৃতি বাহক নাগর নদ। কবি সেই ১৮৯১ সালের ১৩ জানুয়ারি সর্ব প্রথম তার বোটযোগে নাগর নদ দিয়ে পতিসরে এসে এ ঘাটে নেমেছিলেন। সে সময় শত শত জনতা তাকে এ ঘাটে বরণ করে নিয়েছিলেন। এর পর থেকে কবি যতবারই পতিসরে এসেছেন, এ নাগর নদ হয়েই তিনি এসেছেন। আর এ নাগর নদের যে ঘাটে কবি অবতরণ করে তার কাছারিবাড়ি যেতেন, সেটি কাছারিবাড়ির সন্নিকটে হলেও যুগ যুগ থেকে তা ব্যবহার না করে ঘাটটি ব্যবহারের একেবারেই অনুপযোগী হয়ে গিয়েছিল। কবির সেই স্মৃতিকে লালন করার লক্ষ্যেই এমন উদ্যোগ নেয়া হয়েছে।

স¤প্রতি কবিগুরুর স্মৃতিবিজড়িত পতিসরের অনেক উন্নয়ন হলেও এখানে একটি ঘাট নির্মাণের উদ্যোগ কেউ কখনো গ্রহণ করেননি । যে ঘাটে কবির বোট ভিড়ত। যেখান থেকে কবি পায়ে হেঁটে কাছারিবাড়ি পর্যন্ত যেতেন। চলতি বছরের এলজিএসপি প্রকল্পের অর্থ দ্বারা এখানে একটি ‘নাগরঘাট’ তৈরির উদ্যোগ গ্রহণ করেন আত্রাই উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোখলেছুর রহমান। তার এ উদ্যোগকে সার্বিকভাবে বাস্তবায়ন করেন সংশ্লিষ্ট ইউপি চেয়ারম্যান আল্লামা শেরে বিপ্লব।

এ ব্যাপারে বিশ^কবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের স্মৃতি সংগ্রহক ও গবেষক এম মতিউর রহমান মামুনের সাথে কথা বললে তিনি বলেন, এ নাগরঘাট তৈরির মধ্য দিয়ে কবির আরও একটি স্মৃতি বর্ধন হলো। এ ঘাট নির্মাণ হওয়ায় এলাকাবাসী অত্যন্ত আনন্দিত হয়েছে।
এ ব্যাপারে ইউপি চেয়ারম্যান আল্লামা শেরে বিপ্লব বলেন, আমাদের পতিসরে কবির আগমন ছিল এলাকাবাসীর জন্য আশীর্বাদ। তার স্মৃতি রক্ষায় আমরা আরও তৎপর হব। এলজি এসপির অর্থায়নে ৬ লাখ টাকা ব্যয়ে চলতি অর্থবছরে ঘাটটি নির্মাণ করা হলো। পতিসরে নাগর নদে ঘাট তৈরি করে কবির স্মৃতি বর্ধনের প্রয়াস।

এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. মোখলেছুর রহমান বলেন, বিশ্বকবির পদস্পর্শে ধন্য এ পতিসরে কিছু করতে পেরে নিজেকে আমি গর্বিত মনেকরছি। কালের বিবর্তে কবির অনেক স্মৃতিই হারিয়ে গেছে। আমি সাধ্যমত চেষ্টা করছি সেগুলো পুনঃস্থাপনের জন্য।

Comments

comments

About গণমানুষের আওয়াজ.কম

Scroll To Top
error: Content is protected !!