JavaScript must be enabled in order for you to see "WP Copy Data Protect" effect. However, it seems JavaScript is either disabled or not supported by your browser. To see full result of "WP Copy Data Protector", enable JavaScript by changing your browser options, then try again.
সংবাদ শিরোনাম:
Home / অর্থনীতি / অনলাইনে ভ্যাট নিবন্ধনের মেয়াদ ফের তিন মাস বেড়েছে
অনলাইনে ভ্যাট নিবন্ধনের মেয়াদ ফের তিন মাস বেড়েছে

অনলাইনে ভ্যাট নিবন্ধনের মেয়াদ ফের তিন মাস বেড়েছে

অাওয়াজ অনলাইন : অনলাইনে ভ্যাট নিবন্ধন ও এ ব্যবস্থায় ভ্যাট রিটার্ন দাখিলের বাধ্যবাধকতার মেয়াদ আরো তিন মাস বাড়িয়েছে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর)। এর ফলে আগামী ৩০ জুন পর্যন্ত অনলাইনে নিবন্ধন ও রিটার্ন দাখিল করা যাবে। গত মঙ্গলবার এ বিষয়ে একটি গণবিজ্ঞপ্তি জারি করা হয়েছে।

এনবিআরের সংশ্লিষ্ট সূত্র জানিয়েছে, ভ্যাট অনলাইন প্রকল্পের প্রস্তুতিতে এখনো ঘাটতি রয়ে গেছে। গত ৯ মাসে কার্যত তেমন অগ্রগতি হয়নি। অন্যদিকে অনলাই কার্যক্রমকে এগিয়ে নিতে বিদ্যমান ১৯৯১ সালের আইনের কিছু বিধি সংশোধনের প্রয়োজন হয়। কিন্তু ওই বিধি এখনো সংশোধন করা যায়নি। ফলে অনলাইনে নিবন্ধন ও রিটার্ন দাখিল সংক্রান্ত বেশকিছু বিষয় এখনো বিদ্যমান আইনের সঙ্গে সাযুজ্যপূর্ণ করা যায়নি। অন্যদিকে সংশোধিত একটি বিধি ভ্যাট অনলাইন প্রকল্প থেকে তৈরি করা হলেও তাও বিদ্যমান আইনের সঙ্গে সাংঘর্ষিক।

আবার যারা ইতিমধ্যে নিবন্ধন নিয়েছেন, তাদের মধ্যে একটি উল্লেখযোগ্য অংশই বেশকিছু বিড়ম্বনার মুখোমুখি হচ্ছেন বলে অভিযোগ রয়েছে। এরকম বেশকিছু ভুক্তভোগী ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধিদের প্রায়শই ভ্যাট অনলাইন প্রকল্পের অফিস এবং সংশ্লিষ্ট ভ্যাট কমিশনারেটের অফিসে ধর্না দিতে দেখা যায়। ফলে সার্বিক বিবেচনায় আগামী বাজেট পর্যন্ত (৩০ জুন) বিদ্যমান ব্যবস্থায় ভ্যাট দেওয়া যাবে। এর আগেও একাধিক দফায় মেয়াদ বেড়েছে।

এনবিআরের একজন ঊর্দ্ধতন কর্মকর্তা বলেন, আমরাই এখনো প্রস্তুত নই। যে বিধি করার প্রস্তাব করা হয়েছে তা বিদ্যমান আইনের সঙ্গে সাংঘর্ষিক। এজন্য আগামী বাজেটেই এই বিধিটি সংশোধনের চেষ্টা করা হবে। অন্যদিকে বাস্তবায়ন পর্যায়েও কিছু সমস্যা রয়েছে। একজনের কর সনাক্তকরণ নম্বর দিয়ে অন্যজনের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান নিবন্ধন হয়ে গেছে। আবার কোন কমিশনারেট কর্তৃক ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের ব্যবসায়িক কার্যক্রম আটকে দেওয়া (বিআইন লক) হলেও ওই প্রতিষ্ঠান নতুন নিবন্ধন (৯ ডিজিটের) নিয়ে ব্যবসা চালাচ্ছে। কোন সূত্র না থাকায় ওই প্রতিষ্ঠান চিহ্নিতও করা যাচ্ছে না। কেউ কেউ নাম পাল্টে ভিন্ন নামে নিবন্ধন নিচ্ছে।

আবার বিভিন্ন জায়গায় শাখা আছে – এমন প্রতিষ্ঠানের কেন্দ্রীয়ভাবে নিবন্ধন নেওয়ার ক্ষেত্রেও বিদ্যমান আইনে সমস্যা রয়েছে। এসব সমস্যার সমাধান এখনো করা যায়নি। এসব কারনে সময় বাড়াতে হয়েছে। এদিকে ভ্যাট অনলাইন প্রকল্প অফিস সূত্র জানিয়েছে, গতকাল ২৮ মার্চ পর্যন্ত প্রায় ৯৬ হাজার ব্যবসা প্রতিষ্ঠান অনলাইনে ভ্যাট নিবন্ধনের (ই-বিআইএন) আওতায় এসেছে। এর মধ্যে নতুন নিবন্ধিন হয়েছে ৫৪ হাজার ৪৮৯ এবং বিদ্যমান নিবন্ধিত ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের মধ্যে পুন:নিবন্ধন নিয়েছে ৪১ হাজার।

Comments

comments

About গণমানুষের আওয়াজ.কম

Scroll To Top
error: Content is protected !!