দৃষ্টি প্রতিবন্ধী জবা’র পরিবারকে মন্ত্রীপুত্র রাকিবুজ্জামান’র ঈদ উপহার!

আসাদ হোসেন রিফাত ,লালমনিরহাটঃ “মানুষ বাঁচে আশায় স্বপ্ন বাঁচে ভালোবাসায়। বেঁচে থাকুক পৃথিবীর প্রতিটি প্রাণ, অকারনে ঝরে না পড়ুক বাংলা মায়ের সন্তান।” এই প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় সমাজকল্যাণ মন্ত্রী নূরুজ্জামান আহমেদের পুত্র, তারুণ্যের অহংকার, মানবিকতার অনন্য ব্যক্তিত্ব কালীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের যুব ও ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক প্রভাষক রাকিবুজ্জামান আহমেদের উদ্যোগে লালমনিরহাটের কালীগঞ্জ উপজেলার বাসিন্দা শারীরিক ও দৃষ্টি প্রতিবন্ধী শ্যামলী আক্তার জবার পরিবারকে ঈদ উপহার দেয়া হয়েছে।
বৃহস্পতিবার (৩০ জুলাই)  দৃস্টি প্রতিবন্ধী জবা ও তার পরিবারকে মন্ত্রীপুত্রের ঈদ উপহার তুলে দেন উপজেলা যুবলীগের সভাপতি রেফাজ রাঙ্গা ও মনিরুজ্জামান কাঞ্চন সহ যুবলীগ ও ছাত্রলীগের নেতৃবৃন্দ।মন্ত্রীপুত্র রাকিবুজ্জামান আহমেদের পাঠানো ঈদ উপহার পেয়ে শ্যামলী আক্তার জবা বলেন, এ এলাকায় অনেকে আছেন যারা আমার পরিবার সম্পর্কে অবগত তারপরেও তেমন কেউ পাশে দাঁড়ায়নি। মন্ত্রীপুত্র রাকিবুজ্জামান আহমেদ আমার পরিবারকে কুরবানী করার জন্য একটি খাসি সহ ঈদের সকল সামগ্রী প্রেরন করেছেন। এজন্য মন্ত্রীপুত্রের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানাই। এভাবেই তিনি যেন আমাদের সবার পাশে থেকে মানুষের কল্যাণে কাজ করে যেতে পারেন।
জবার প্রতিবেশি রফিকুল ইসলাম বলেন, যেমন বাব তেমন তার সন্তান। আল্লাহর কাছে হামরা দোয়া করি রাকিবুজ্জামান আহমেদ তার পিতার মতই মানুষের কল্যাণে পাশে থাকবেন। আল্লাহ তাকে পিতার মতই যেন সম্মান দেন হামরা এ দোয়া করি। পরিবারটির ঈদে হয়তো খাবারও জুটতো না, দৃস্টি প্রতিবন্ধী হওয়ায় স্বামী স্ত্রী কাজ কর্মও করতে পারে না। মন্ত্রীপুত্রের মানবিকতায় এবার ঈদে কুরবানী সহ ভালমন্দ খেতে পারবে।
এ বিষয়ে মন্ত্রীপুত্র রাকিবুজ্জামান আহমেদ মুঠোফোনে জানান, আমি মানুষের কল্যাণে কাজ করতে ভালবাসি। আমি নিজেও সঙ্গীত প্রিয় মানুষ তাই একজন সঙ্গীত শিল্পীর সংবাদ দেখে আমি এ উপহার প্রেরন করেছি। সমাজের সবার বেঁচে থাকার অধিকার রয়েছে। জবা ও তার পরিবারও ভালভাবে বেঁচে থাকুক এটাই আমার কাম্য।
উল্লেখ্য, মন্ত্রীপুত্র রাকিবুজ্জামান আহমেদ সব সময় অসহায় মানুষের পাশে থেকে কাজ করে চলেছেন। এর আগেও তিনি করোনায় কর্মহীন হয়ে পড়া অসহায়দের বিভিন্ন দূর্যোগে ও সমাজের সকল অসহায় মানুষের পাশে সাহায্যের হাত বাড়িয়েছেন।