হুমায়ুন কবির সুমন, সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি : পুত্রবধূকে ধর্ষণের চেষ্টায় স্থানীয় মৌলভীদের ফতুয়ায় বিচারের নামে শ্বশুড়কে জুতার মালা পড়িয়ে গ্রাম ঘুরানোর ঘটনায় মেছড়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আব্দুল মজিদসহ ১৩ জনের নামে গৃহবধূর ভাই শরিফ বাদী হয়ে সিরাজগঞ্জ সদর থানায় মামলা দায়ের করেছে। ৯(৪)(খ)/৩০ ২০০০ সালের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন সংশোধনীয় ২০০৩ ধর্ষণের চেষ্টা ও সহায়তা করার অপরাধে মামলা
দায়ের করা হয়। মামলা নং-৫, তারিখ: ০১.০৬.২০২০ইং।

মামলার আসামীরা হলেন- মৃত গঞ্জের আলীর ছেলে স্বশুর আমির হোসেন, মৃত সবুর উদ্দিন ভূইয়ার ছেলে ও মেছরা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আব্দুল মজিদ, মৃত জসিম উদ্দিন ব্যাপারীর ছেলে সাবেক মেম্বর আবু সামা, মৃত জেলহক এর ছেলে সাবেক মেম্বর মো: শফিকুল ইসলাম, আজিজুল হকের ছেলে সাবেক মেম্বর মো: আলম, মৃত মফিজ উদ্দিনের ছেলে আবুল হোসেন মাষ্টার, মৃত অছিমুদ্দিন সরকারের ছেলে মো: আল আমিন, মো: হাকিম পিতা
অজ্ঞাত, বিলাত মেম্বরের ছেলে মো: জাহিদ মেম্বর, মো: ইমান মাষ্টারের ছেলে মো: রফিকুলচাকলাদার, গোলাম রসূল চাকলাদারের ছেলে মোনায়েম চাকলাদার, মৃত মফিজ ব্যাপারির ছেলে মমিনুল ইসলাম, মো: জয়নাল পিতা- অজ্ঞাতসহ ৭/৮জন। এবিষয়ে স্থানীয় একটি পত্রিকায় গত ৩১ মে ২০২০ইং তারিখে তথ্যনুন্ধানীয় একটি সংবাদ প্রকাশিত হয়।

মামলা সূত্রে জানা যায়, ১৭ এপ্রিল ২০২০ইং তারিখে গৃহবধূর কবিতার শ্বশুড় মো: আমির হোসেন ঘরের ভিতর ঢুকে ধর্ষণের চেষ্টা করে। গৃহবধূর কবিতার চিৎকারে স্বামী শাকিল হোসেন এগিয়ে এসে গৃহবধূকে রক্ষা করে। ঘটনাটি ধামাচাপা দিতে গত ৩০ মে ২০২০ইং তারিখে দুপুরে মেছড়া ইউনিয়নের বালিয়ামেন্দা গ্রামে বিচারের নামে ইউপি
চেয়ারম্যান মো: আব্দুল মজিদ স্থানীয় মৌলভীদের ফতুয়ায় শ্বশুড় আমির হোসেনকে জুতার মালা পড়িয়ে গ্রাম ঘুরায়। প্রকৃত ঘটনাটি আড়াল করা এবং আসামীকে বাঁচানোর চেষ্টার সহযোগি হিসেবে ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল মজিদসহ ১৩জনের নাম উলেখ করে অজ্ঞাত ৭/৮জনের নামে মামলা দায়ের করে। এবিষয়ে সিরাজগঞ্জ সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো: হাফিজুর রহমান বলেন, এবিষয়ে গৃহবধূর ভাই শরিফ বাদী হয়ে মামলা দায়ের করেছে। ঘটনাস্থালে পুলিশ পরির্দশ করেছে। দ্রুত আসামীদের গ্রেফতার করা হবে।