Home » আইন-আদালত » আটকেপড়া ভারতীয় পাসপোর্ট যাত্রীদেরকে তাদের দেশে ঢুকতে দেওয়া হচ্ছেনা
আটকেপড়া ভারতীয় পাসপোর্ট যাত্রীদেরকে তাদের দেশে ঢুকতে দেওয়া হচ্ছেনা

আটকেপড়া ভারতীয় পাসপোর্ট যাত্রীদেরকে তাদের দেশে ঢুকতে দেওয়া হচ্ছেনা

বেনাপোল প্রতিনিধি: কোভিড-১৯ যা করোনা ভাইরাস নামে পরিচিত। সাম্প্রতিক সময়ে গনমাধ্যমের শিরোনামে প্রাধান্য বিস্তার করেছে। এশিয়ার বিভিন্ন অংশ এবং এর বাইরেও দ্রুত ছড়িয়ে পড়ছে এই ভাইরাস। সাধারন সতর্কতা অবলম্বন করে এই ভাইরাসটির সংক্রমন ও বিস্তারের ঝুকি কমিয়ে আনা সম্ভব। সারা বিশ্বের মতো বাংলাদেশেও এর প্রভাব বিস্তার শুরু করেছে। বাংলাদেশ সরকার এ ব্যাপারে কঠোর অবস্থানে রয়েছে। মঙ্গলবার (২৪/৩/২০২০ ইং)তারিখ থেকে স্বাস্থ্য নিরাপত্তায় সেনাবাহিনীকে মাঠে নামানো হয়েছে। জনসাধারন কে ঘরে বসেই যাবতীয় কাজকর্ম করার নির্দেশনা প্রদান করা হচ্ছে। জনসচেতনতা মূলক প্রচার মাইকিং চালু রেখেছে দেশের প্রত্যেকটি জেলা-উপজেলা প্রশাসন।
বিদেশীতেরকে তাদের নিজ দেশে চলে যাওয়ার নির্দেশনা প্রদান করা হয়েছে। এ ব্যাপারে দেশের প্রত্যেকটি ইমিগ্রেশন দপ্তরে সরকারি নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। গত ১২/৩/২০২০ ইং তারিখ ভারতের পেট্রাপোল ইমিগ্রেশন একটি চিঠির মাধ্যমে বেনাপোল ইমিগ্রেশনে জানিয়ে দেওয়া হয় যে, শুধুমাত্র ভারতীয় নাগরিক এবং বিদেশীদেরকে ঢুকতে দিবে কিন্তু তারা কোন বাংলাদেশীকে ঢুকতে দেওয়া হবে না। ঐ চিঠির বুনিয়াদে বিদেশী পাসপোর্ট যাত্রীরা চলাচল অব্যাহত রাখে। কিন্তু মঙ্গলবার(২৪/৩/২০২০ ইং) তারিখ ভারতীয় পেট্রাপোল ইমিগ্রেশন হঠাৎ কোন সিদ্ধান্ত ছাড়াই ভারতীয় নাগরিক সহ কোন বিতেশী পাসপোর্ট যাত্রীকে সে দেশে ঢুকতে দেওয়া হচ্ছে না। এ দিন সকালে বেনাপোল চেকপোস্ট এর কাস্টম এবং পুলিশ ইমিগ্রেশন ঘুরে দেখায় মিললো এর সত্যতা।
প্রায় শতাধিক বিদেশী পাসপোর্ট যাত্রী আন্তর্জাতিক প্যাসেঞ্জার টার্মিনাল প্লাটফর্মে শুয়ে-বসে অপেক্ষা করছেন তাদের নিজ দেশে যাওয়ার জন্য। কিন্তু ভারতীয় ইমিগ্রেশনের প্রবেশে বাধা-নিষেধ থাকায় তারা তাদের নিজের দেশে ঢুকতে পারছে না। এদের মধ্যে ৭০(সত্তর) জনই মেডিকেল ছাত্র-ছাত্রী। গত ৪ বছর ধরে তারা বাংলাদেশের ময়মনসিংহ কমিউনিটি বেসরকারি মেডিকেল কলেজে পড়াশোনা করে,এরা প্রক্যেকেই কাশ্মিরী নাগরিক, ৯ জন ভারতীয় রয়েছেন রামপাল বিদ্যুৎ প্লান্টের শ্রমিক,বাকী অন্যান্যরা ভারতীয় সাধারন পর্যটক।
তাদের ফেরৎ যাওয়ার ব্যাপারে বেনাপোল ইমিগ্রেশন পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা(ওসি) আহসান হাবীব জানিয়েছেন, সোমবার(২৩/৩/২০২০ ইং) তারিখ বিকালে ভারতের পেট্রাপোল ইমিগ্রেশন এর তিনজন কর্মকর্তা বাংলাদেশ থেকে আর কোন দেশী-বিদেশী পাসপোর্ট যাত্রীকে তারা গ্রহন করবেন না বলে স্রেফ জানিয়ে দিয়ে যান।
উপরিল্লিখিত আটকে পড়া পাসপোর্ট যাত্রীদের ভারতে প্রবেশের ক্ষেত্রে সে দেশের ইমিগ্রেশনের পক্ষ থেকে কোন নির্দেশনা না আসা পর্যন্ত তিনি তাদের যাওয়ার ব্যাপারে বিছুই বলতে পারবেন না বলে জানিয়ে দেন। ওসি’র সাক্ষাত এর সময় ভারত থেকে আসা রুবিয়া বেগম নামের একজন বাংলাদেশী মহিলা পাসপোর্ট যাত্রীকে বেনাপোল ইমিগ্রেশনে ঢুকতে দেখা যায়।
এদিকে,বেনাপোল এবং পেট্রাপোল এর মধ্যে গতকাল সোমবার(২৩/৩/২০২০ইং) তারিখ সকাল থেকেই পণ্য আদান-প্রদান সম্পূর্ণভাবে বন্ধ রয়েছে।
BIGTheme.net • Free Website Templates - Downlaod Full Themes
Scroll Up
error: Content is protected !!