শরণখোলায় শিক্ষার্থীর হাত ভাঙ্গায় প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক বরখাস্ত

নাজমুল ইসলাম সবুজ শরণখোলা প্রতিনিধিঃ বাগেরহাটের শরণখোলায় ক্ষুদে শিক্ষার্থীদের দিয়ে তিন তলার ছাদে ইট উঠানোর সময় পড়ে গিয়ে হাত ভেঙ্গে যাবার ঘটনায় সেই প্রধান শিক্ষককে বরখাস্ত করা হয়েছে। প্রাথমিক তদন্তে ঘটনার সত্যতা প্রমানিত হওয়ায় বুধবার (১৩ নভেম্বর) জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মোঃ কবির উদ্দিন ই-মেইল বার্তার মাধ্যমে উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসে বরখাস্তের আদেশ প্রেরণ করেন।
বরখাস্ত হওয়া প্রধান শিক্ষক নাসির উদ্দিন মুক্তা সাউথখালী ইউনিয়নের ৫২নম্বর বকুলতলা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক। তিনি গত ১১ নভেম্বর বিদ্যালয়ের ছাত্রদের দিয়ে দুই তলার একটি কক্ষে রাখা পুরনো ইট তিনতলার ছাদে ওঠান। এ সময় পঞ্চম শ্রেণির ছাত্র মারুফ হোসেন ইট বহনের সময় মাথা ঘুরে পড়ে গেলে ডান হাতটি ভেঙে যায় এবং নাক-মুখ দিয়ে রক্ত বের হতে থাকে। আহত ওই ছাত্র বকুলতলা গ্রামের বাক প্রতিবন্ধী মোঃ শাহীন হাওলাদারের ছেলে।
এ খবর জানতে পেরে পরের দিন ১২ নভেম্বর দুপুরে শরণখোলা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সরদার মোস্তফা শাহিন ঘটনাস্থল পরির্দশন করে ঘটনার সত্যতা পান এবং সংশ্লিষ্ট বিভাগকে অভিযুক্ত শিক্ষকের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার সুপারিশ করেন। এছাড়া ঘটনাটি নিয়ে বিভিন্ন অনলাইন ও প্রিন্ট গণমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশিত হয়। পরবর্তীতে ঘটনার চারদিনের মাথায় সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ ওই শিক্ষককে বরখাস্তের সিদ্ধান্ত গ্রহন করে।
উপজেলা জ্যেষ্ঠ সহকারী প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মোঃ মিজানুর রহমান পাইক অভিযুক্ত শিক্ষকের বরখাস্তের বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, আদেশের কপি ওই প্রধান শিক্ষককে প্রদান করা হয়েছে।অভিযুক্ত প্রধান শিক্ষক মোঃ নাসির উদ্দিন মুক্তা ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, আমি স্থানীয় এক ইউপি সদস্য ও কিছু ব্যক্তির ষড়যন্ত্রের স্বীকার হয়েছি।